Home / খবর / আওয়ামী লীগের নতুন ঠিকানা খুললেন প্রধানমন্ত্রী

আওয়ামী লীগের নতুন ঠিকানা খুললেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতিষ্ঠার প্রায় সাত দশক পর স্বয়ংসম্পূর্ণ ভবন পেল আওয়ামী লীগ। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় অফিসের ১০তলা নতুন ভবনের উদ্বোধন করলেন ।

শনিবার সকাল ১০ টায় দলের ৬৯ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা নেতাকর্মীদের বহুল প্রতীক্ষিত ভবনটি উদ্বোধন করেন।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা জানান, দলের নিজস্ব তহবিল থেকে থেকে ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে ভবনটি নির্মাণ করা হয়েছে। বাইরে থেকে ভবনটি দেখলে যে কারোরই চোখ আটকে যাবে। এর বাইরের দেয়ালজুড়ে একাত্তর, বাহান্নসহ বাংলাদেশের সংগ্রামগাথা। শুধু একটি রাজনৈতিক দলের কার্যালয় নয় তাদের নির্মাণ পরিকল্পনায় ছিল একটি পূর্ণাঙ্গ কমপ্লেক্স। সাংগঠনিক কর্মতৎপরতা পরিচালনার পাশাপাশি যে স্থাপনা পরিণত হবে গবেষণা আর মুক্তিযু্দ্ধের চেতনা বিকাশের কেন্দ্রবিন্দুতে।

গত বছর দলের ৬৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে নতুন ভবন নির্মাণের ঘোষণা দেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী। এর ১ বছরের ব্যবধানে পরবর্তী প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর পূর্বেই মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের এ নতুন ঠিকানা।

এর আগে সকালে আওয়ামী লীগের ৬৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পরে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে প্রথমে সরকার প্রধান হিসেবে ফুল দেন এবং তারপরে দলীয় প্রধান হিসেবে নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে ফুল দেন তিনি। পরে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা নেতা-কর্মীরা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

সরেজমিনে দেখা গেছে, আধুনিক নানা সুযোগ সুবিধা থাকা ভবনটিতে মূল দলের পাশাপাশি অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের জন্যও পর্যাপ্ত জায়গা রয়েছে। ভবনটির নির্মাণশৈলীতেও রাখা হয়েছে মুন্সীয়ানা।

গত তিন যুগেরও বেশি সময় ধরে ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ের যে ভবনটি কেন্দ্রীয় কার্যালয় হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছিল। ১৯৪৯ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে নানা সময় ঠিকানা পাল্টেছে আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের। ১৯৮১ সালে শেখ হাসিনা দলের সভাপতি হয়ে দেশে ফেরার পর দলটি থিতু হয় বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে।

আর যে মাটির ওপর ভবনটি ছিল, আট কাঠার সেই জমিটি ৯৯ বছরের জন্য ইজারা নিয়ে তৈরি হয়েছে ভবনটি। আধুনিক প্রযুক্তিতে নির্মিত ভবনটি পুরোটাই থাকবে ওয়াইফাইয়ের আওতায়।

আওয়ামী লীগ সূত্র জানায়, উদ্বোধনের পর দলের সব সাংগঠনিক কার্যক্রম চলবে এই ভবন থেকে। আর ধানমন্ডির আওয়ামী লীগ সভাপতির কার্যালয় থেকে দলের নির্বাচনী কার্যক্রম ও সিআরআইসহ দলের অন্যান্য সংস্থার গবেষণামূলক কাজ চলবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar