Home / আর্ন্তজাতিক / কিম-ট্রাম্পের দ্বিতীয় বৈঠক ভিয়েতনামেই

কিম-ট্রাম্পের দ্বিতীয় বৈঠক ভিয়েতনামেই

হোয়াইট হাউস সম্প্রতি মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উনের দ্বিতীয় বৈঠকের ব্যাপারে নিশ্চিত করে । সেখানে তারিখ ও স্থানের কথা জানানো না হলেও ভিয়েতনামে এ বৈঠক হতে পারে বলে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছিলো আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম। সেই সম্ভাবনাই সত্যি হলো। চলতি মাসের শেষের দিকে ভিয়েতনামে কিমের সঙ্গে বৈঠকের ঘোষণা দিয়েছেন ট্রাম্প।

মঙ্গলবার মার্কিন কংগ্রেসের এক যৌথ অধিবেশনে বার্ষিক স্টেট অব ইউনিয়ন ভাষণে এ ঘোষণা দেন ট্রাম্প। খবর বিবিসির।

২৭ ও ২৮ ফেব্রুয়ারি ভিয়েতনামে কিমের সঙ্গে বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে জানিয়ে ট্রাম্প বলেন, ‘আমাদের বন্দিরা বাড়িতে ফিরে এসেছে, পারমাণবিক পরীক্ষা বন্ধ হয়েছে আর গত ১৫ মাসের মধ্যে একটি ক্ষেপণাস্ত্রও ছোড়া হয়নি। আমি যদি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত না হতাম, এখন আমরা, আমার মতে, উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে একটি বড় ধরনের যুদ্ধে রত থাকতাম।’

তিনি বলেন, ‘আরও অনেক কাজ করতে হবে, কিন্তু কিম জং উনের সঙ্গে আমার সম্পর্ক একটি ভালো বিষয়।’

কমিউনিস্ট শাসিত ভিয়েতনামের সঙ্গে উত্তর কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র, উভয়েরই ভালো সম্পর্ক আছে। ট্রাম্প-কিমের দ্বিতীয় বৈঠকের জন্য এই দেশটির নামই সবচেয়ে বেশি বার সুপারিশ করা হয়েছিল বলে খবর রয়টার্সের।

ভিয়েতনামের কোন শহরে তাদের বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হবে তা জানাননি ট্রাম্প। তবে ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয় অথবা ডা নাংয়ে বৈঠকটি হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

অনেক জল্পনার পর গত বছরে সিঙ্গাপুরে ঐতিহাসিক বৈঠকে মিলিত হন বিশ্বের আলোচিত দুই নেতা। সেখানে পরমাণু নিরস্ত্রীকরণের ঘোষণা দেন উত্তর কোরীয় নেতা কিম। এছাড়া বেশ কয়েকটি যুগান্তকারী চু্ক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

তবে সেই বৈঠকের পরও একে অপরের ওপর দোষারোপ করা থামায়নি দুই দেশ। একই সঙ্গে দুই দেশের নেতাদের আলোচনাও চলেছে। এমন অবস্থায় বেশ কিছুদিন থেকে কিম-ট্রাম্পের দ্বিতীয় বৈঠকের কথা শোনা যাচ্ছিলো। সম্প্রতি হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে এই বৈঠকের ঘোষণা দেয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar