Home / আর্ন্তজাতিক / ট্রাম্প শত্রু-মিত্র কাউকেই বাণিজ্যে সুবিধা দেব না

ট্রাম্প শত্রু-মিত্র কাউকেই বাণিজ্যে সুবিধা দেব না

 যুক্তরাষ্ট্র এবার মিত্রদের সঙ্গেই প্রকাশ্যে দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়েছে। ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বেরিয়ে যাওয়ার পর শনিবার শেষ হওয়া এবারের জি-সেভেন সম্মেলনেও মিত্রদের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে এলো।

সম্মেলন শেষে জি-সেভেন দেশগুলোর যৌথ বিবৃতি প্রকাশ করেন এবারের আয়োজক দেশ কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। যৌথ বিবৃতি প্রকাশের পর সিঙ্গাপুর সফররত মার্কিন প্রেসিডেন্ট টুইট বার্তায় এ বিবৃতি প্রত্যাখ্যানের ঘোষণা দেন। এছাড়া সোমবার অপর এক টুইটে ট্রাম্প বলেন, শত্রু বা মিত্র কাউকেই আমাদের থেকে বাণিজ্য সুবিধা নিতে দেব না।

ইস্পাত ও অ্যালুমিনিয়াম পণ্য আমদানিতে যুক্তরাষ্ট্রের শুল্ক আরোপের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রতিশোধমূলক ব্যবস্থা নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে কানাডা, মেক্সিকো ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

জি-সেভেন শীর্ষ সম্মেলনের শেষ দিনও উত্তপ্ত ছিল ভেতরের ও বাইরের পরিবেশ। বাইরে জি-সেভেন ও ট্রাম্প বিরোধীরা বিক্ষোভ করে এবং রাস্তায় আগুন ধরিয়ে দেয়। আর ভেতরের পরিবেশ ছিলো বাইরের চেয়েও উত্তপ্ত। সেখানে ইস্পাত ও অ্যালুমিনিয়াম আমদানিতে যুক্তরাষ্ট্রের শুল্ক আরোপ ও রাশিয়াকে জি-সেভেনে ফিরিয়ে আনার প্রস্তাবসহ বিভিন্ন ইস্যুতে কোণঠাসা হয়ে পড়েন ট্রাম্প।

পরে যৌথ বিবৃতির মধ্য দিয়ে সম্মেলনের সমাপনী টানেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। যৌথ ঘোষণায় রাশিয়ার উস্কানিমূলক আচরণ সম্মিলিতভাবে প্রতিহত করার পাশাপাশি ইরান শান্তিপূর্ণ উপায়ে পরমাণু কর্মসূচি সীমিত রেখেছে বলে উল্লেখ করা হয়। এছাড়া বাস্তবভিত্তিক সমাধানের ভিত্তিতে বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় জোটের নেতারা একমত হয়েছেন বলেও জানান ট্রুডো।

শিল্পোন্নত দেশগুলোর মধ্যে বাণিজ্যে সমতা আনতে বৈষম্যমূলক কর তুলে দেয়ার প্রস্তাব দিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, কোনো কর নয়, কোনো বাধাও নয়। আর কোনো ভর্তুকিও নয়। যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে দশকের পর দশক ধরে সুবিধা নেয়া হয়েছে। এ অবস্থা আর চলতে পারে না। ন্যায্য ও পারস্পরিক বাণিজ্যের প্রয়োজনে জি-সেভেন নেতাদের সঙ্গে আমার খোলামেলা আলোচনা হয়েছে। আমি মনে করি বাণিজ্য হতে হবে সমতার ভিত্তিতে।

এছাড়া কানাডার প্রাধানমন্ত্রীকে মিথ্যাবাদী আখ্যা দিয়ে ট্রাম্প বলেন, সম্মেলনের বিষয়ে তিনি যে বিবৃতি দিয়েছেন তা সম্পূর্ণ ভুয়া।

রবিবার ও সোমবার একাধিক টুইটে এসব বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন ট্রাম্প। এসব টুইটে তিনি কানাডা ও অন্যান্যের কড়া সমালোচনা করে বলেছেন, ফেয়ার ট্রেড সিস্টেম এখন মূর্খ ট্রেড সিস্টেমে পরিণত হয়েছে।

অপর এক টুইটে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, দুঃখিত, আমরা আমাদের বন্ধু বা শত্রুদের আর বাণিজ্যে সুবিধা নিতে দিতে পারি না। আমেরিকান শ্রমিকদের আমরা অবশ্যই এগিয়ে রাখবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar