ব্রেকিং নিউজ
Home / জাতীয় / দুই বিল পাস সংসদে

দুই বিল পাস সংসদে

২০১৮’, ‘হিন্দুধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট বিল, ২০১৮’ জাতীয় সংসদে সোমবার দুইটি বিল পাস হয়েছে। বিলগুলো হলো: ‘জাতীয় পরিকল্পনা ও উন্নয়ন একাডেমি বিল, ।

দক্ষ জনশক্তি গড়তে যুগোপযোগী প্রশিক্ষণ প্রদানের জন্য একটি জাতীয় প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠায় প্রয়োজনীয় বিধান করে সোমবার সংসদে জাতীয় পরিকল্পনা ও উন্নয়ন একাডেমি বিল, ২০১৮ সংশোধিত আকারে পাস করা হয়েছে। পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বিলটি পাসের প্রস্তাব করেন।
বিলে বিদ্যমান অধ্যাদেশের অধীন প্রতিষ্ঠিত জাতীয় পরিকল্পনা ও উন্নয়ন একাডেমির এমনভাবে অব্যাহত রাখার বিধান করা হয়েছে, যেন তা এ বিলের বিধানের অধীন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।
বিলে একাডেমির প্রধান কার্যালয় ঢাকায় স্থাপন এবং প্রয়োজনে দেশের যেকোনো স্থানে শাখা কার্যালয় স্থাপনের বিধান করা হয়।
বিলে একাডেমি পরিচালনায় সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রীকে চেয়ারম্যান বা ভাইস চেয়ারম্যান করে ১৫ সদস্যের পরিচালনা বোর্ড গঠনের বিধান করা হয়েছে।
বিলে পরিচালনা বোর্ডের সভা, একাডেমির কার্যাবলী, মহাপরিচালক নিয়োগ, কর্মচারী নিয়োগ, কমিটি গঠন, একাডেমির তহবিল, বাজেট, হিসাব ও নিরীক্ষা, প্রতিবেদন পেশ, বিধি-প্রবিধি প্রণয়নের ক্ষমতাসহ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সুনির্দিষ্ট বিধান করা হয়েছে।
বিলে সরকারি শিক্ষণ ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউশন অধ্যাদেশের অধীন পরিচালিত বিদ্যমান জাতীয় পরিকল্পনা ও উন্নয়ন একাডেমি রহিত করার বিধান করা হয়।
এদিকে হিন্দুধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট অধ্যাদেশ রহিত করে সংশোধিত আকারে পুনঃপ্রণয়ন করতে সংসদে হিন্দুধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট বিল, ২০১৮ পাস করা হয়েছে। ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান বিলটি পাসের প্রস্তাব করেন।
বিলে বিদ্যমান হিন্দুধর্মীয় অধ্যাদেশের অধীন প্রতিষ্ঠিত হিন্দুধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট এমনভাবে বহাল রাখার বিধান করা হয় যে, যেন তা এ বিলের বিধানের অধীনে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।
বিলে ট্রাস্টের প্রধান কার্যালয় ঢাকায় স্থাপনের বিধান করা হয়। তবে প্রয়োজনে অনুমোদন সাপেক্ষে দেশের যে কোন স্থানে ট্রাস্টের শাখা কার্যালয় স্থাপন করতে পারবে।
বিলে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রীকে চেয়ারম্যান করে ২৫ সদস্যের ট্রাস্টি বোর্ড গঠনের বিধান করা হয়।
বিলে বোর্ড সদস্য মনোনয়ন ও তাদের মেয়াদ, ট্রাস্টের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য, বোর্ডের সভা, ট্রাস্টের কার্যাবলী, সচিব নিয়োগ, ট্রাস্ট পরিচালনা ও প্রশাসন, কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগ, ট্রাস্টের তহবিল, হিসাব রক্ষণ ও নিরীক্ষা, ক্ষমতা অর্পণ, প্রতিবেদন পেশ, বিধি-প্রবিধিমালা প্রণয়নের ক্ষমতাসহ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সুনির্দিষ্ট বিধান করা হয়েছে।
জাতীয় পার্টির নূরুল ইসলাম ওমর, সেলিম উদ্দিন, মোহাম্মদ আব্দুল মুনিম চৌধুরী, বেগম মাহজাবীন মোরশেদ, বেগম রওশন আরা মান্নান ও শামীম হায়দার পাটোয়ারী বিলের ওপর জনমত যাচাই, বাছাই কমিটিতে প্রেরণ ও সংশোধনী প্রস্তাব আনলে তা কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়।

এছাড়া আজ সংসদে সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) বিল, ২০১৮ উত্থাপন করা হয়েছে। ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল ও সড়ক পরিবহন বিলের ওপর প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar