ব্রেকিং নিউজ
Home / খবর / প্রথম দিনে প্রচারে সরব হেভিওয়েট চার প্রার্থী

প্রথম দিনে প্রচারে সরব হেভিওয়েট চার প্রার্থী

প্রার্থীরা আসন্ন ঢাকা সিটি নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ পেয়েই প্রচারে নেমেছেন । দুই সিটিতে মেয়র পদে লড়ছেন আওয়ামী লীগ ও বিএনপি মনোনীত হেভিওয়েট চার প্রার্থী। তাদের সঙ্গে দুই সিটিতে প্রতিদ্বন্দ্বী রয়েছেন আরও নয়জন। শুক্রবার নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর দিনে এই চার প্রার্থীই ঢাকাবাসীর দোয়া চেয়েছেন।

অচল শহরকে সচল করব: আতিকুল

ঢাকা উত্তরে নৌকা নিয়ে আতিকুল ইসলাম প্রচার শুরু করেছেন ঢাকাকে আরও আধুনিক করার প্রত্যয় ব্যক্ত করে। প্রতীক বরাদ্দের পর উত্তরার ৪ নম্বর সেক্টরের ৮ নম্বর রোডের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সামনে থেকে গণসংযোগ শুরু করেন ডিএনসিসি সদ্য সাবেক এই মেয়র।

প্রচারণাকালে আতিক বলেন, ‘এই অচল শহরকে সচল করতে, একটি আধুনিক, মানবিক, গতিময় শহর হিসেবে গড়ে তুলতে ৩০ জানুয়ারি নৌকায় ভোট দিন। আমি কাজপাগল মানুষ, আমি কাজ করতে চাই। আমি ফাঁকিবাজি পছন্দ করি না। আপনাদের নিয়ে এই শহর গড়তে চাই।’

সবার ভোট চান তাবিথ

উত্তরে আতিকুলের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের তাবিথ আউয়াল। দুপুরে উত্তরা ৭ নম্বর জামে মসজিদে জুমার নামাজ শেষে সুষ্ঠু নির্বাচন চেয়ে প্রচারণা শুরু করেন। তার সঙ্গে বিএনপির বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মীদের উপস্থিতি ছিল।

তাবিথ বলেন, ‘আমি প্রত্যাশা করি, নির্বাচনটি সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য করতে কমিশন কাজ করবে। জনগণ ভোট দেওয়ার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন। আমি চাই, সবাই ভোটাধিকার প্রয়োগ করুক।’

তার প্রচারণায় অংশ নিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এই নির্বাচনকে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও গণতন্ত্রের মুক্তির অংশ হিসেবে নিয়েছি। আমরা বিশ্বাস করি, দেশের মানুষ গণতন্ত্রের মুক্তির জন্য খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য তাবিথ আউয়ালকে ভোট দিয়ে দেশনেত্রীকে মুক্ত করবেন। তারা দেশের গণতন্ত্রকে মুক্ত করবেন ইনশাআল্লাহ।’

ভোটের আগে ও বিজয়ী হলেও আমাকে পাবেন: তাপস

আবার দক্ষিণে নৌকার মাঝি শেখ ফজলে নূর তাপস গণসংযোগের মাধ্যমে শুরু করেন তার নির্বাচনী প্রচারণা। বলেছেন, তাকে সব সময়ই পাবে ঢাকাবাসী। প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন বিজয়ী হলে ঢাকাকে সচল নগরী হিসেবে গড়ে তুলবেন।

প্রতীক বরাদ্দ পাওয়ার পর তাপস দক্ষিণের ৭০ নম্বর ওয়ার্ডের ডেমরা আশুলিয়া মডেল টাউন, মেহেন্দিপুর বাজার, মীরবাগ থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন। ভোট চান নৌকা প্রতীকে। তার সঙ্গে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ছিলেন।

তাপস বলেন, ‘আমি ভোটারদের ঘরে ঘরে যেতে চাই। ভোটের আগে যেভাবে ঢাকাবাসী আমাকে পাবে, আমি বিজয়ী হলে এর কোনো পরিবর্তন হবে না। আমি বিজয়ী হলে ঢাকা শহরকে সুন্দর, সচল হিসেবে গড়ে তুলব। সুন্দর, আধুনিক ঢাকা গড়তে হলে আমাদের জাতীয় প্রতীক নৌকাকে বিজয়ী করতে হবে। নৌকার বিজয় হলেই কেবল আমি নগরবাসীকে সুন্দর ঢাকা উপহার দিতে পারব। এজন্য নগরবাসির দোয়া চাই, নগরবাসীকে পাশে চাই।’

বাবা থাকলে খুশি হতেন: ইশরাক

তাপসের প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির ইশরাক বাবা অবিভক্ত ঢাকার শেষ মেয়র সাদেক হোসেন খোকার কবর জিয়ারত দিয়ে প্রচারণায় নেমেছেন। এই নির্বাচনকে তিনি সংগ্রাম হিসেবেই দেখছেন বলে জানিয়েছেন। বলেছেন, বিএনপি বিজয়ী হলে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করেই আনবেন।

দুপুরে বায়তুল মোকাররম থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন ইশরাক। নেতাকর্মীদের নিয়ে মিছিল সহকারে বাইতুল মোকাররম থেকে পুরানা পল্টন মোড় হয়ে দৈনিক বাংলা মোড়ের দিকে যান। এসময় তারা পথচারী ও দোকানদারদের মধ্যে লিফলেট বিতরণ করেন।

ইশরাক বলেন, ‘আমি ধানের শীষের প্রার্থী। বিএনপি মনোনীত প্রার্থী। আপনারা আমার জন্যে দোয়া করবেন। আমরা আন্দোলন সংগ্রাম শুরু করেছি, খালেদা জিয়া আমাদের মা। তার মুক্তির আন্দোলন, গণতন্ত্র মুক্তির আন্দোলন শুরু করেছি। ইনশাল্লাহ, আমরা বিজয়ী হয়ে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে আনব।’

উত্তরায় তাবিথের প্রচারণায় অংশ নিয়ে পল্টনে ইশরাকের প্রচারণায়ও যোগ দেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। পল্টন মোড় এলাকায় ইশরাককে পরিচয় করিয়ে দিয়ে তিনি বলেন, ‘গণতন্ত্রের মুক্তি ও দেশনেত্রীর মুক্তির জন্য নির্বাচনকে আমরা আন্দোলন হিসেবে নিয়েছি। ইশরাককে নিয়ে আমরা সেই আন্দোলন শুরু করলাম। আজ থেকে আমাদের নতুন আন্দোলন শুরু হলো। এই আন্দোলনে আমাদের মার্কা ধানের শীষ।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this:
Skip to toolbar