Home / খবর / ফুটপাত ফের উচ্ছেদ , মাস না পেরোতেই দখল

ফুটপাত ফের উচ্ছেদ , মাস না পেরোতেই দখল

রাজধানীর বেশ কিছু এলাকার ফুটপাত বারবার উচ্ছেদ করেও দখলমুক্ত করা যাচ্ছে না । স্থানীয় পেশিশক্তির জোরে একদিকে ফুটপাতগুলো নিয়মিত দখল হচ্ছে, অন্যদিকে সিটি করপোরেশনও তা দখলমুক্ত রাখার চেষ্টা করছে। আগারগাঁওয়ে গত এক মাস আগে দখলমুক্ত করা ফুটপাত আবার দখল হয়ে যাওয়ায় সিটি করপোরেশন তা উদ্ধার করেছে।

মঙ্গলবার সকালে শেরে বাংলা নগরে আগারগাঁও বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর এবং শিশু হাসপাতাল এলাকায় অভিযান চালায় সিটি করপোরেশন। ফুটপাত দখল করে অবৈধভাবে গড়ে তোলা প্রায় আড়াশ দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান উচ্ছেদ করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

অভিযানটি পরিচালনা করেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মীর নাহিদ আহসান। এতে নেতৃত্ব দেন ডিএনসিসি প্যানেল মেয়র আলেয়া সারোয়ার ডেইজি।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জানান, সকালে বিজ্ঞান জাদুঘরের সামনে থেকে অভিযানটি শুরু হয়। এসময় সরকারি জায়গা দখল করে অবৈধভাবে গড়ে তোলা গাড়ির কয়েকটি গ্যারেজ উচ্ছেদ করা হয়। এক্ষেত্রে কাউকে কোনো জরিমানা না করা হলেও গ্যারেজ মালিকদের থেকে মুচলেকা নেয়া হয়েছে।

এছাড়া জাদুঘরের পাশ থেকে ডাক অফিস পর্যন্ত ফুটপাতে অবৈধ ৫০টি দোকানও উচ্ছেদ করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

স্থানীয়রা জানায়, প্রতি বছরই এই জায়গাগুলোতে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়। কিন্তু তিন থেকে ছয় মাসের মধ্যে আবার দখলে হয়ে যায় এই জায়গাগুলো।

এরপর শেরেবাংলা নগর শিশু হাসপাতাল, পঙ্গু হাসপাতাল ও শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের সামনের ফুটপাতেও অভিযান পরিচালনা করে ডিএনসিসির এই ভ্রাম্যমাণ আদালত। এসময় আরও দুই শতাধিক অবৈধ দোকান উচ্ছেদ হয়েছে বলে জানান ম্যাজিস্ট্রেট।

গত ২৬ জুন এই একই জায়গায় উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেছিলেন ডিএনসিসির এই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। সে সময়ও দুই শতাধিক স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। এক মাসেরও কম সময়ে দখল হয়ে যায় ফুটপাতগুলো।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, স্থানীয় প্রভাবশালীদের ক্ষমতার ওপর ভর করেই ফুটপাতে বসছে অবৈধ দোকানপাট। আর এসব দোকান থেকে দৈনিক ও মাসিক হারে টাকা আদায় করেন প্রভাবশালীরা।

অভিযানের নেতৃত্ব দেয়া উত্তর সিটির প্যানেল মেয়র আলেয়া সারোয়ার ডেইজি ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘আগারগাঁওয়ের ওই ফুটপাত খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তা দখলে থাকার কারণে হাসপাতালমুখি রোগীদের অনেক ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। সমস্যাটি নিরসনে আমরা আজ এই উচ্ছেদ অভিযান করলাম।’

প্যানেল মেয়র বলেন, ‘ফুটপাত দখলমুক্ত করতে ডিএনসিসি অভিযান অব্যাহত থাকবে। আজ প্রায় আড়াশ’র মতো অবৈধ স্থাপনা আমরা উচ্ছেদ করেছি। তবে উচ্ছেদ করেই আমাদের কাজ শেষ নয়। এরপরেও কেউ আবার ফুটপাত দখল বা জনগণের চলাচলে বাধা সৃষ্টির চেষ্টা করলে আমরা তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar