Home / খেলা / বিরাটের রেকর্ড ভারতের সিরিজ জয়

বিরাটের রেকর্ড ভারতের সিরিজ জয়

ভারত বিপদে পড়লেই রুখে দাঁড়াচ্ছেন রবীন্দ্র জাডেজা বিশ্বকাপ থেকেই দেখা যাচ্ছে। ব্যাটিং, বোলিং অথবা ফিল্ডিং দিয়ে দলকে বিপন্মুক্ত করার চেষ্টা করছেন বাঁ-হাতি অলরাউন্ডার। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টের চতুর্থ দিন সেই জাডেজাই পার্থক্য গড়ে দিলেন তিন উইকেট নিয়ে। সেই সঙ্গেই টেস্ট বিশ্বকাপে প্রথম সিরিজজয়ী দলের সম্মান পেল ভারত। দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ভারত জিতেছে ২-০ ব্যবধানে।

একই দিনে ভারতীয় টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে সব চেয়ে বেশি জয়ের রেকর্ডের মালিকও হয়ে গেলেন বিরাট কোহলি। অধিনায়ক হিসেবে তিনি জিতলেন ২৮টি টেস্ট। তাঁর আগে এই রেকর্ড ছিল মহেন্দ্র সিংহ ধোনির। জেতার পরে বিরাট বলেন, ‘‘ক্যাপ্টেন্সির ‘সি’ শব্দটা নামের আগে নিছকই একটা অলঙ্কার। আমাদের এই দুর্দান্ত জয় এসেছে দলীয় সংহতিতেই। এই সাফল্যের কৃতিত্ব সকলের।’’

তৃতীয় দিন ভারত ডিক্লেয়ার করার পরেই বোঝা গিয়েছিল ৪৬৮ রান তাড়া করার ক্ষমতা এই ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের নেই। সোমবার ম্যাচের চতুর্থ দিন প্রত্যাশা মতোই ২১০ রানে দ্বিতীয় ইনিংস শেষ হয়ে গেল জেসন হোল্ডারদের। ভারত জিতল ২৫৭ রানে। জন্মদিনে দু’টি উইকেট নেন ইশান্ত শর্মা। তিন উইকেট মহম্মদ শামি ও জাডেজার। যশপ্রীত বুমরার এক উইকেট। বিপক্ষকে হোয়াইটওয়াশ করে ১২০ পয়েন্ট নিয়ে টেস্ট বিশ্বকাপ তালিকার শীর্ষে থেকে দেশে ফিরতে চলেছে বিরাট-বাহিনী।

সোমবার সাবাইনা পার্কে জাডেজার বোলিং দেখে মনে হচ্ছিল যেন চেন্নাইয়ের এম এ চিদম্বর স্টেডিয়ামে বল করছেন। এক হাত করে বল ঘুরছে। সঙ্গে বাউন্সের সাহায্যও পাচ্ছিলেন। উইকেটকিপার হ্যামিল্টনকে বাঁ-হাতি স্পিনারের আদর্শ বলে ফিরিয়ে দিলেন। হ্যামিল্টনের বাইরে বেরিয়ে যাওয়া বল ব্যাট ছুঁয়ে চলে যায় দ্বিতীয় স্লিপে কে এল রাহুলের হাতে। জাডেজার শিকার হতে পারতেন ব্রুকসও। কিন্তু তা নো বল দেন টিভি আম্পায়ার রড টাকার। টিভি আম্পায়ারের সেই সিদ্ধান্ত নিয়ে যদিও বিতর্ক তৈরি হয়।

৪৫-২ স্কোরে চতুর্থ দিন শুরু করেছিলেন ড্যারেন ব্র্যাভো ও শ্যামর ব্রুকস। ড্রয়ের পরিকল্পনা নিয়েই ব্যাট করছিলেন দুই ব্যাটসম্যান। কিন্তু ১৭তম ওভারে যশপ্রীত বুমরাকে কভার ড্রাইভ করে চার রান কুড়িয়ে নেওয়ার পরে হঠাৎই তিনি মাটিতে বসে পড়েন। ড্রেসিংরুমেও ফিরে যান ব্র্যাভো। রবিবার দিনের শেষে বুমরার বাউন্সার হেলমেটে আছড়ে পড়েছিল ব্র্যাভোর। প্রশ্ন উঠছে স্টিভ স্মিথের মতো তিনিও কি দেরিতে স্থায়িত্ব হারালেন? অ্যাশেজের দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় দিন জোফ্রা আর্চারের বাউন্সারে আঘাত পাওয়ার পরের দিন ব্যাট করতে পারেননি স্মিথ। এ দিন ব্র্যাভোর পরিবর্তে ‘কংকাশান সাব’ হিসেবে ক্রিজে এসে ৩৮ রান করেন জারমেইন ব্ল্যাকউড।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar