Home / খবর / রুখে দাঁড়াতে হবে যে কোন ষড়যন্ত্র ও অপচেষ্টাকে: প্রেসিডেন্ট

রুখে দাঁড়াতে হবে যে কোন ষড়যন্ত্র ও অপচেষ্টাকে: প্রেসিডেন্ট

বিগত দিনে মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী শক্তি আমাদের মুক্তি সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে অনেক মিথ্যাচার করেছে প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ বলেছেন। মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের বিকৃত ইতিহাস শিক্ষা দেয়ার অপচেষ্টা হয়েছে। যারা ইতিহাস বিকৃত করেছে তারা সব কিছু জেনে শুনেই করেছে। বঙ্গবন্ধু, মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে ভয় পায় বলেই এসব করেছে এবং করছে। তিনি আরো বলেন, মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী অপশক্তি সুযোগ পেলেই মাথা চাড়া দিয়ে উঠতে চায়। এরা দেশের স্বাধীনতা, গণতন্ত্র ও উন্নয়নের শত্রু।

তাই দেশ ও জাতীর স্বার্থে তাদের যে কোন ষড়যন্ত্র ও অপচেষ্টাকে রুখে দাঁড়াতে হবে। আর এ জন্য মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে এবং গণতান্ত্রিক চিন্তা-চেতনার বিকাশ ঘটাতে হবে। আমাদের নতুন ও ভবিষ্যত প্রজম্মকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় গড়ে তোলা আমাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য।
আজ সোমবার বিকেলে গাজীপুরের শহীদ বরকত স্টেডিয়ামে ১৯৭১ সালের ১৯শে মার্চ স্বাধীনতার প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ দিবস উপলক্ষে সংগ্রামে অংশগ্রহণকারী বীর ও শহীদদের স্মরণে  নাগরিক সংবর্ধনা ও আলোচনা অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির ভাষণে এসব কথা বলেন তিনি।

প্রেসিডেন্ট আরো বলেন, রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মাধ্যমে যে দেশটির জন্ম, সে দেশ আজ সগৌরবে উন্নতি ও অগ্রগতির পথে এগিয়ে যাচ্ছে। নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতুর মতো বৃহৎ প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ মহাকাশে উৎক্ষেপণের অপেক্ষায় রয়েছে। বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে শামিল হয়েছে। নারীর ক্ষমতায়ন, দারিদ্র বিমোচন, জেন্ডার সমতাকরণ, শিশু ও মাতৃ মৃত্যুর হার হ্রাসকরণসহ বহু বিষয়ে বাংলাদেশ এখন বিশ্বব্যাপি উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে।  উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত থাকলে ২০৪১ সালে বাংলাদেশ অবশ্যই উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশের কাতারে শামিল হতে হবে।
অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবিরের সভাপতিত্বে ও জেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন সবুজের সঞ্চালনায় মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী  আ ক ম মোজাম্মেল হক, স্থানীয় সংসদ সদস্য জাহিদ আহসান রাসেল, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আক্তারুজ্জামান, পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ, মহানগর আওয়ামীলীগ সভাপতি আজমত উল্লাহ খান, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ  বক্তব্য রাখেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar