ব্রেকিং নিউজ
Home / খবর / শালীনতা রাখতে হয় বক্তব্যে : ফখরুলকে কাদের

শালীনতা রাখতে হয় বক্তব্যে : ফখরুলকে কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের শালীনতার সীমার বাইরে যাওয়া উচিত নয়- বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন ।

শনিবার নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের কাঁচপুরে চট্টগ্রাম-সিলেট মহাসড়কের সংযোগ সড়কের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে একথা বলেন কাদের।

কানাডার আদালতে বিএনপিকে দুইবার সন্ত্রাসী সংগঠন এবং ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় বিএনপির তিন নেতার ফাঁসি ও চার নেতার যাবজ্জীবন কারাদ- হওয়ার বিষয়টিও তুলে ধরেন কাদের। সমালোচনা করেন এই রায়ের প্রতিক্রিয়ায় বিএনপির পক্ষ থেকে আসা বক্তব্যের।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার দায় বিএনপির হলে পিলখানা হত্যার দায় আওয়ামী লীগের। কারণ, তাদের আমলেই এই হত্যা হয়েছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘তারা এখন বেসামাল হয়ে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়কে কেন্দ্র করে পিলখানার হত্যাকা- টেনে সরকারের বিরুদ্ধে তথাকথিত সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ তুলছে।’

মির্জা ফখরুলকে আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, ‘কথাবার্তা শালীনতা বজায় রেখে বলা উচিত। শালিনতার সীমা রেখার বাইরে যাওয়া উচিত নয়।’

‘পিলখানায় হত্যাকা-ের বিচার হয়েছে, কেউ প্রশ্ন তোলেনি। আজকে বিএনপি সেখানেও তাদের মুখের বিষ ঢেলে দিচ্ছে। তারা বলছে, সরকারি নাকি দায়ী।’

পিলখানা হত্যার সময় খালেদা জিয়া আত্মগোপনে ছিলেন দাবি করে কাদের বলেন, ‘২৪ ঘণ্টা হারানো বিজ্ঞপ্তির পর্যায়ে তিনি ছিলেন। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার আসামিদের মতো পিলখানা হত্যাকা-ের আসামিদেরও পালিয়ে যেতে সহায়তা করেছে বিএনপির নেতৃত্বাধীন একটি টিম।’

‘এটা আমার সাজানো কথা নয়। যিনি (খালেদা জিয়া) সকাল ১১টার আগে ঘুম থেকে উঠেন না, তিনি কেন সকাল সাড়ে সাতটায় বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে গেলেন?’

‘কেঁেচা খুড়তে চান, কেঁচো খুড়তে গিয়ে বিষধর সাপ বেরিয়ে আসবে। সেই সাপে আপনাদেরই দশংন করবে’-বিএনপিকে বলেন আওয়ামী লীগ নেতা।

কাদের বলেন, ‘কানাডা ও দেশের অভ্যন্তরীণ আদালতে রায়ের মাধ্যমে ইতিমধ্যে প্রমাণিত হয়েছে বিএনপি একটি আর্ন্তজাতিক সন্ত্রাসী দল। তাদের কোন নীতি নৈতিকতা ও আদর্শ নেই।’

বিএনপিকে ‘বিষফোঁড়া’ আখ্যা দিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘তাদের রাজনৈতিক হাতিয়ার হচ্ছে সন্ত্রাস। যারা পলিটিক্স ও ভায়োলেন্সকে একত্রিত করে ফেলেছে।’
‘২১ আগস্ট হত্যা মামলার রায় হওয়ার পর তারা আসলেই ধরা পড়ে গেছে। সত্যকে আড়াল করার জন্য মুখের বিষ ও গলার জোড় দিয়ে আবোল তাবোল বলছে।’

ব্যবসায়ীদের সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি মীর নাসির হোসেন,  সড়ক ও জনপথ বিভাগের ঢাকা বিভাগীয় অতিরিক্ত প্রকৌশলী আব্দুস সবুর,  হাইওয়ে পুলিশের ডিআইজি আতিকৃুল ইসলাম, নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান, নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নিবার্হী প্রকৌশলী আলীউল হোসেনসহ কাচঁপুর সেতু নির্মাণ কাজে  নিয়োজিত জাপানের প্রকৌশলীসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar