Home / অন্যান্য / অপরাধ / সংবর্ধনা দিতে গিয়ে হেনস্থার শিকার এক নারী নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যানকে !

সংবর্ধনা দিতে গিয়ে হেনস্থার শিকার এক নারী নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যানকে !

নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আবুল কালামের বিরুদ্ধে নারীদের নাথে অশালিন আচরণের অভিযোগ উঠেছে বান্দরবানে আলীকদমে ।

সম্প্রতি উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর বিভিন্ন এলাকায় সংবর্ধনা নিতে গিয়ে তিনি নারীদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে জড়িয়ে ধরে শ্লীলতাহানী করেছেন মর্মে বিভিন্ন মহল থেকে অভিযোগ উঠেছে।

এনিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মেয়েদের জড়িয়ে ছবি ভাইরাল হয়েছে। বিভিন্ন লোক তার আচরণ সম্পর্কে ফেসবুক স্টাটাস দিয়েছে।

একজন ফেসবুকেিউপজাতি নারীকে জড়িয়ে ধরা ছবি দিয়ে লিখেছেন-সংবর্ধনা নিতে গিয়ে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠির নারীর সাথে চেয়ারম্যানের এ কেমন আচরণ?

গত সপ্তাহে উপজেলা নির্বাচনের প্রথম ধাপে বান্দরবানের আলীকদমে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন মো. আবুল কালাম।

এরপর ২২ মার্চ স্থানীয় নোয়াপাড়া ইউনিয়নের মেরিনচর পাড়ায় সংবর্ধনা নিতে যান তিনি। ওই পাড়াটিতে মূলত ম্রো ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠির মানুষদের বসবাস।

ম্রো সম্প্রদায়ের মানুষদের কাছ থেকে সংবর্ধনা নেয়ার সময় আবুল কালাম সবার সম্মুখেই একজন বিধবা নারীর সাথে বেশ আপত্তিকর আচরণ করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া কয়েকটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে, ম্রো নৃগোষ্ঠির এক নারীকে জনসম্মুখে জড়িয়ে ধরে আছেন।

ওই নারীর অভিব্যক্তিতে স্পষ্ট যে, তিনি এতে খুবই অস্বস্তি বোধ করছেন এবং জোর করে চেয়ারম্যানের হাত থেকে ছুটে যেতে চেষ্টা করছেন। অন্যদিকে চেয়ারম্যান তাকে জোরপূর্বক ধরে রাখার চেষ্টা করছেন।

যমুনা টেলিভিশনের বান্দরবান প্রতিনিধি ওই নারীর পরিচয় নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, তিনি একজন বিধবা। ওই নারীর ভাই স্থানীয় এমএনপি কমান্ডারের ঘনিষ্ঠ হওয়ার সুবাদে চেয়ারম্যান আবুল কালাম ওই পাড়ায় সংবর্ধনা নিতে আসেন।

এদিকে সামাজিক মাধ্যমে ছবিগুলো ছড়িয়ে পড়ার পর অনেকেই চেয়ারম্যানের সমালোচনায় সরব হয়েছেন। ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠির একজন বিধবা নারীকে এভাবে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে হেনস্তা করার দায়ে চেয়ারম্যানের বিচারও চেয়েছেন অনেকে।

ছবিগুলো শেয়ার করে মোহাম্মদ রকি নামে একজন ফেসবুকে লিখেছেন, “মো: আবুল কালাম, একজন নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান।

বান্দরবন জেলার আলীকদম উপজেলায় সম্প্রতি তিনি চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হন। নির্বাচিত হওয়ার পর তিনি ম্রো আদিবাসীদের পাড়ায় যান সংবর্ধনা নেওয়ার জন্য।

বান্দরবনের ম্রো আদিবাসী জনগোষ্টিরা সচরাচর একটু সরল প্রকৃতির। সাদা মনের মানুষ ও বটে, সরল মনে ম্রো আদিবাসীরা খুব সহজে বিশ্বাস করে থাকেন।

তারা হয়ত এটা জানেনা যে, মোঃ আবুল কালাম সাহেব (নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান) ম্রোদের মত একজন সরল প্রকৃতির মানুষ নন।

তিনি আরও লিখেছেন, “একজন জনপ্রতিনিধি কখনো এইভাবে একজন নারীকে জড়িয়ে ধরতে পারেননা ওই নারীর অনুমতি ছাড়া।

কান্ডজ্ঞানহীন ব্যক্তি ছাড়া কখনো একজন নারীকে এইভাবে জড়িয়ে ধরতে পারেনা। এটি সম্পৃর্ণ শ্লীলতাহানি ও নারী সমাজকে অবমূল্যায়ন করা।”

নিপুন ত্রিপুরা নামে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠির একজন ছবিগুলো শেয়ার করে লিখেছেন, “ভোট কারচুপি করে বিজয়ী হওয়া আলীকদমের এ জানোয়ার চেয়ারম্যানের নাম মোহাম্মদ আবদুল কালাম।

সংবর্ধনা নিতে গিয়ে সহজ সরল ম্রো মেয়েকে জড়িয়ে ধরে কামনা মিটাচ্ছে আর আশেপাশে সব চামচারা হাততালি দিচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar