Home / চট্টগ্রাম / ৩ প্রাণ সড়কে ঝরল

৩ প্রাণ সড়কে ঝরল

৩ তাজা প্রাণ পটিয়া ও মীরসরাইয়ে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় চালকসহ ঝরল। এছাড়া আহত হয়েছেন আরো চারজন। গতকাল বুধবার এসব দুর্ঘটনা ঘটে।
স্থানীয়রা জানান, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়া জলুয়ারদিঘি এলাকায় কক্সবাজারমুখী শ্যামলী পরিবহনের একটি বাসের (ঢাকামেট্টে-ব-১৫-১৭৫৩) সাথে চট্টগ্রামমুখী যাত্রীবাহী একটি সিএনজি টেক্সির মুখোমুখী সংঘর্ষ হয়। এতে টেক্সির চালক সাতকানিয়া শিলঘাটা এলাকার অমর বড়ুয়া পুত্র উত্তম বড়ুয়া (৪৩) ও যাত্রী একই এলাকার বজেন্দ্র বড়ুয়ার পুত্র যাত্রী সংঘদাশ বড়ুয়া (৭০) প্রাণ হারান। গতকাল বুধবার ভোর সাড়ে ৫টায় এ দুঘর্টনা ঘটে।
পটিয়া ফায়ার সার্ভিসের ইনচার্জ সৌমেন বড়ুয়া জানান, পটিয়ায় বাস-টেক্সির মুখোমুখী সংঘর্ষে ঘটনাস্থলে টেক্সির যাত্রী এবং চমেক হাসপাতালে নেয়ার পথে চালক মারা যান। পটিয়া ক্রসিং পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এবিএম মিজানুর রহমান জানান, দুর্ঘটনা কবলিত গাড়ি দুইটি আটক করা হয়েছে। মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। এছাড়া রাত সোয়া ১১টায় উপজেলার মনসা বাদামতল এলাকায় ট্রাকের ধাক্কায় সিএনজি টেক্সির চালকসহ দুইজন গুরুতর আহত হয়েছেন। তবে এ দুর্ঘটনায় আহতদের নাম ঠিকানা পাওয়া যায়নি। বর্তমানে ট্রাক ও টেক্সিটি পটিয়া ক্রসিং হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির জিম্মায় রয়েছে বলে জানা যায়।
এ বিষয়ে পটিয়া ক্রসিং পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এবিএম মিজানুর রহমান জানান, যাত্রী নিয়ে সিএনজি টেক্সিটি চট্টগ্রাম থেকে পটিয়ায় ফিরছিল। এসময় মনসা বাদামতল এলাকায় পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা দ্রুতগামী একটি ট্রাকের সাথে টেক্সিটির ধাক্কা লেগে সেটি ধুমড়ে মোচড়ে যায়। এতে টেক্সির চালকসহ দুজন গুরুতর আহত হন। পরে আহতদের উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। মীরসরাইয়ে চালকের মৃত্যু : মীরসরাই বড়তাকিয়া এলাকায় ফিলিং স্টেশনের সামনে ট্রাকের ধাক্কায় পিকআপ উল্টে চালকসহ ৩ জন গুরুতর আহত হয়েছেন। স্থানীয় ফায়ার সার্ভিসকর্মীরা এদের উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে এবং পরে চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ৮টায় পিকআপ চালকের মৃত্যু হয়।
মীরসরাই ফায়ার সার্ভিসের স্টেশান ইনচার্জ মো. তানভির জানান, বুধবার কুমিল্লা থেকে চট্টগ্রামগামী একটি পিকআপ (চট্টমেট্রো ন- ১১-৭৬২) সকাল ৭টায় মীরসরাই অতিক্রমকালে বড়তাকিয়া এলাকায় ফিলিং স্টেশনের সামনে অজ্ঞাত ট্রাকের ধাক্কায় উল্টে যায়। পরে আমরা খবর পেয়ে দ্রুত পিকআপ চালক কুমিল্লার মুরাদনগরের শফিকুল ইসলাম (২৭), যাত্রী চট্টগ্রামের ওয়াসার মিল্লাত রানা (৩৫) ও পাঁচলাইশ এলাকার ইরফানকে (১৬) উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করি।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. লুৎফুর রহমান জানান, চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা তিনজনের মধ্যে দু’জনের অবস্থা আশংকাজনক ছিল। এর মধ্যে পিকআপ চালক শফিকুল ইসলাম মারা গেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar