Home / খবর / ১০ দিন সময় দিলেন বৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক মেরামতে কাদের

১০ দিন সময় দিলেন বৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক মেরামতে কাদের

সাত থেকে ১০ দিন সময় বেঁধে দিয়েছেন বৃষ্টিতে সড়ক-মহাসড়কে তৈরি হওয়া খানাখন্দক মেরামতে  সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এর মধ্যে মেরামত কাজ শেষ না হলে সড়ক বিভাগের কর্মীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি।

বুধবার দুপুরে ঢাকা- টাঙ্গাইল মহাসড়কের চার লেনের কাজ পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা জানান সড়ক মন্ত্রী। টাঙ্গাইল সফরে এসে ঢাকা-বঙ্গবন্ধু সেতু সংযোগ মহাসড়কে টাঙ্গাইলের রাবনা বাইপাস এলাকা ঘুরে দেখেন তিনি।
গত এপ্রিল থেকে চলা অস্বাভাবিক বৃষ্টিতে দেশের বিভিন্ন এলাকায় সড়ক-মহাসড়কের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। কোথাও কোথাও বিশাল গর্ত তৈরি হয়েছে। তৈরি হয়েছে অজ¯্র খানাখন্দক। এ কারণে চলার পথে দীর্ঘ সময় লাগছে, প্রায় তৈরি হচ্ছে দীর্ঘ যানজট।

তবে এক সপ্তাহ ধরে বৃষ্টি হচ্ছে না সেভাবে এবং সহসা ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাসও নেই। এই পরিস্থিতিতে সড়ক মেরামতের কাজ শুরু করা যায় বলেই মনে করছেন সড়ক মন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘দীর্ঘদিনের টানা বর্ষণের কারণে সড়ক-মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে খানা-খন্দকের সৃষ্টি হওয়ায় যান চলাচল বিঘিœত হচ্ছে। আগামী সাত থেকে ১০ দিনের মধ্যে দেশের সকল সড়ক-মহাসড়ক মেরামতের জন্য কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। অন্যথায় সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এ সময় মন্ত্রী পত্রিকার কর্মীদের জন্য নতুন বেতন কাঠামো নিয়েও কথা বলেন। তিনি বলেন, সাংবাদিকদের জন্য নবম ওয়েজ বোর্ড বাস্তবায়নের কাজ ৮০ ভাগ শেষ হয়েছে। এটা বাস্তবায়ন এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র।

এর আগে মঙ্গলবার সচিবালয়ে নিউজ পেপারস ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (নোয়াব) এর সঙ্গে এক বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছিলেন, সাংবাদিকদের জন্য ওয়েজ বোর্ড অপ্রয়োজনীয়।

সরকারি চাকরিজীবীদের তুলনায় সাংবাদিকদের ওয়েজ বোর্ডের বেতন বেশি। তাই নতুন ওয়েজ বোর্ড রাখাটা আননেসেসারি।
তবে সড়ক মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী নবম ওয়েজ বোর্ডের ব্যাপারে তথ্যমন্ত্রীকে ইতিবাচক নিদের্শনাও দিয়েছেন। সাংবাদিক সংগঠনগুলোও এ ব্যাপারে ঐক্যবদ্ধ আছে। এ বিষয়ে শুধু মালিকপক্ষকে পাওয়া যাচ্ছে না। মালিকপক্ষ এগিয়ে এলেই আলাপ আলোচনার মাধ্যমে নবম ওয়েজ বোর্ড ঘোষণা করা হবে।

এ সময় টাঙ্গাইল সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী নূরে আলম, ঢাকা টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেন উন্নীতকরণ প্রকল্প পরিচালক জিকরুল হাসান, টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আসলাম খান, টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের সভাপতি জাফর আহম্মেদ ও সাধারণ সম্পাদক কাজী জাকেরুল মওলাসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগের বিভিন্ন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*