Home / খবর / চট্টগ্রামের জলাবদ্ধতা নিরসনে সমন্বিত উদ্যোগের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

চট্টগ্রামের জলাবদ্ধতা নিরসনে সমন্বিত উদ্যোগের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

 প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রামের জলাবদ্ধতা নিরসনে সরকারের তিন সংস্থা ও বিভাগকে সমন্বিত উদ্যোগ নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। এজন্য স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেনের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠনের পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জানান, সভায় চট্টগ্রামের জলাবদ্ধতা নিরসনে কোনো সংস্থা বা বিভাগকে আলাদা আলাদা উদ্যোগ না নিয়ে সমন্বিত উদ্যোগ নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেছেন, আলোচ্য প্রকল্পে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনকে রাখা হয়নি। এটির সঙ্গে তাদেরকেও যুক্ত করতে হবে।

বুধবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে তিনি এ নির্দেশ দেন। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এসব বিষয় জানান পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

একনেক সভায় চট্টগ্রাম শহরের জলাবদ্ধতা নিরসনে খাল পুনঃখনন, সম্প্রসারণ, সংস্কার ও উন্নয়ন শীর্ষক একটি প্রকল্প অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হয়। এটি বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৫ হাজার ৬১৬ কোটি ৫০ লাখ টাকা। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অধিনস্ত চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (চউক)।

প্রকল্পটি সমন্বিত ভিত্তিতে করার নির্দেশ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, প্রকল্পটি বাস্তবায়নের মূল দায়িত্ব গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অধীস্থ চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের। তবে এ কাজের সঙ্গে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এবং পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়কেও যুক্ত করতে হবে।

পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেনের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হবে। ওই কমিটিতে সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগের লোক রাখা হবে, যা করার জন্য প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন। এই কমিটি চট্টগ্রামের জলাবদ্ধতা নিরসনে একসঙ্গে কাজ করবে।

একনেকে জামালপুর জেলার সরিষাবাড়ী উপজেলাধীন যমুনা নদীর তীর সংরক্ষণের মাধ্যমে ভুয়াপুর-তারাকান্দি সড়ক রক্ষা প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়। এর ব্যয় ধরা হয়েছে ২০৩ কোটি ৭০ লাখ টাকা।

প্রধানমন্ত্রী জামালপুরের যমুনা নদীর তীর রক্ষা প্রকল্পের কাজ আগামী তিনমাসের মধ্যে শুরু করার তাগিদ দিয়েছেন। একই সঙ্গে তা আগামী দুই বছরের মধ্যে শেষ করতে হবে বলেও সময় বেধে দিয়েছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*