Home / ঢাকা / আমরা আইয়ুবের শাসনামলে ফিরে যাচ্ছি: শাহদীন মালিক

আমরা আইয়ুবের শাসনামলে ফিরে যাচ্ছি: শাহদীন মালিক

সংবিধান বিশেষজ্ঞ ড. শাহদীন মালিক ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ায় সরকারি দল আওয়ামী লীগের সমালোচনা করেছেন । বলেছেন ‘ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের বিরোধিতায় এটা প্রমাণ করে আমরা আবারো আইয়ুব খানের শাসনামলে ফিরে যাচ্ছি। আমরা গণতন্ত্রের চর্চা ভুলে গিয়ে আমিত্বের চর্চা করছি।’

বুধবার বিকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে ষোড়শ সংশোধনীর রায় নিয়ে এক গোলটেবিল আলোচনায় তিনি এসব কথা বলেন। নাগরিক ঐক্য এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।

শাহদীন মালিক বলেন, ‘বাংলাদেশে এই প্রথম আপিল বিভাগের সাতজন বিচারপতি কোনো রায়ে একমত হয়েছেন। আগে এর নজির নেই। এই সাত বিচারপতিকে বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারই নিয়োগ দিয়েছে।’

এই সংবিধান বিশেষজ্ঞ বলেন, ‘বাংলাদেশের সংসদ সার্বভৌম না। সংসদের ক্ষমতা সংবিধান দ্বারা সীমিত।’ ষোড়শ সংশোধনীর আগে এ ব্যাপারে জনগণের সঙ্গে কথা বলা উচিত ছিল বলেও মনে করেন তিনি।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘ষোড়শ সংশোধনী বাতিল করে সুপ্রিম কোর্টের দেয়া রায়ে জাতির স্বপ্ন ও প্রত্যাশা পূরণ হয়েছে।’ গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত সরকার নেই বলে দেশে বিশৃঙ্খলা বিরাজ করছে বলেও মনে করেন তিনি।

ষোড়শ সংশোধনী রায়ের বিরুদ্ধে দুই মন্ত্রীর দেয়া বক্তব্যের সমালোচনা করে মান্না বলেন, ‘সরকারের বিরুদ্ধে যাচ্ছে এমন কিছু সরকার মানতে পারছে না। তাই সরকার এখন সুপ্রিম কোর্টে রায়ের বিরুদ্ধে জনমত তৈরি করতে চাইছে। সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের সিদ্ধান্ত কোনো রাজনৈতিক বিষয় নয়, অথচ এটি নিয়ে রাজনীতির মাঠ গরম করতে চাইছে সরকার।’

আলোচনায় অংশ নিয়ে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের সভাপতি আ স ম আব্দুর রব বলেন, ‘দেশের সব প্রতিষ্ঠান শেষ হয়ে গেছে। বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর এত বড় সাহস বিচার বিভাগ দেখাতে পারেনি। ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের মাধ্যমে সুপ্রিম কোর্ট প্রমাণ করে দিয়েছে জনগণের একমাত্র ভরসার জায়গা এখনো আছে।’ তিনি বর্তমান সরকারকে ‘অপরিপক্ক সরকার’ বলেও অভিহিত করেন।

আলোচনায় আরও বক্তব্য দেন নাগরিক ঐক্যের উপদেষ্টা এসএম আকরাম,  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগে অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন, বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির প্রধান নির্বাহী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*