Home / খবর / জামায়াতের আট নেতা রিমান্ডে আমির-সেক্রেটারিসহ

জামায়াতের আট নেতা রিমান্ডে আমির-সেক্রেটারিসহ

আদালত অস্ত্র ও বিস্ফোরক এবং বিশেষ ক্ষমতা আইনের পৃথক দুই মামলায় জামায়াতে ইসলামীর বর্তমান আমির মকবুল আহমাদ ও সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমানসহ আট নেতার পৃথক দুই মামলায় পাঁচ দিন ও ১০ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছে ।

মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর হাকিম গোলাম নবী শুনানি শেষে আসামিদের জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

মামলা দুইটির তদন্তকারী কর্মকর্তা কদমতলী থানার ইন্সপেক্টর মো. সাজু মিয়া প্রত্যেক মামলায় আসামিদের ১০ দিন করে ২০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন।

রিমান্ডকৃত অপর ছয় আসামি হলেন, কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির মিয়া গোলাম পরওয়ার, চট্টগ্রাম মহানগর আমির মোহাম্মদ শাজাহান, সেক্রেটারি নজরুল ইসলাম, দক্ষিণ জেলার আমির জাফর সাদেক, সেক্রেটারি জেনারেলের ব্যক্তিগত সহকারী নজরুল ইসলাম ও মো. সাইফুল ইসলাম।  এর আগে গত সোমবার রাতে রাজধানীর উত্তরার একটি বাসা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

রিমান্ড আবেদনে বলা হয়, গত ২৯ সেপ্টেম্বর রাতে কদমতলী থানাধীন বিক্রমপুর গার্ডেন সিটির ৪৪২/২ পূর্ব ধোলাইপাড়ের বাসার সাত তলায় আসামিরা গোপন বৈঠকে মিলিত হন। খবর পেয়ে পুলিশ উপস্থিত হলে অপর ১০ জন আসামি গ্রেপ্তার হলেও ওই আসামিরা পালিয়ে যান। আসামিরা গোপনে মিলিত হয়ে রাষ্ট্রীয় সম্পদের ক্ষতি সাধনসহ দেশে অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি, অন্তর্ঘাতমূলক কার্যসম্পাদন ও জ্বালাও পোড়াও পরিস্থিতি সৃষ্টির পরিকল্পনার জন্য একত্রিত হয়েছিলেন বলে সাক্ষ্য প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে। তাই আসামিদের সঙ্গে আর কে কে উপস্থিত ছিল তা জানার জন্য এবং মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য আসামিদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা প্রয়োজন।

আসামি পক্ষে অ্যাডভোকেট এসএম কামাল উদ্দিন, আব্দুর রাজ্জাক, ঢাকা আইনজীবী সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম, সানাউল্লাহ মিয়াসহ প্রমুখ রিমান্ড বাতিল করে জামিন আবেদনের শুনানি করেন।

রাষ্ট্রপক্ষে ঢাকা মহানগর পাবলিক প্রসিকিউপর আব্দুল্লাহ আবু, অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর আমিন উদ্দিন মানিক ও সালমা হাই টুনি জামিন আবেদনের বিরোধিতা করেন।

শুনানি শেষে বিচারক আসামিদের জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে বিশেষ ক্ষমতা আইনের একটি মামলায় পাঁচ দিন এবং অস্ত্র ও বিস্ফোরক আইনের অপর মামলায় পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে একই মামলায় গত ৩০ সেপ্টেম্বর জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আমির নুরুল ইসলাম বুলবুলসহ ১০ জনের ছয় দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত। রিমান্ড শেষে পরবর্তী সময়ে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে। ওই আসামিদের গ্রেপ্তারের সময় ককটেল, প্রচুর ‘জিহাদি’ বই, দুটি বড় ছুরি ও তিনটি চাপাতি উদ্ধার করে পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*