Home / খবর / প্রধানমন্ত্রী বিএনপিকে ক্ষমতার স্বপ্ন দেখে লাভ নেই

প্রধানমন্ত্রী বিএনপিকে ক্ষমতার স্বপ্ন দেখে লাভ নেই

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা  বিএনপির দিকে ইঙ্গিত করেবলেছেন, ‘তারা আবার ক্ষমতার স্বপ্ন দেখে কীভাবে? জনগণ কি তাদের ভোট দেবে? জনগণ কি আবার ভোট দিয়ে আপদ টেনে আনবে। আমার এদেশের মানুষের ওপর বিশ্বাস আছে। অন্তত যাদের বিবেক আছে তারা ভোট দেবে না। স্বপ্ন দেখে লাভ নেই। মানুষ এখন সুন্দরভাবে বাঁচতে চায়। সেই সুযোগটা আমরা সৃষ্টি করেছি। দেশকে আজ আমরা একটি সম্মানজনক অবস্থানে নিয়ে এসেছি।’

বৃহস্পতিবার রাতে জাতীয় সংসদে দেয়া অধিবেশনের সমাপনী ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন। ১০ জাতীয় সংসদের ১৮তম অধিবেশন সমাপ্ত হয়েছে আজ। এই অধিবেশনের মেয়াদ ছিল ১০ দিন।

খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘তিনি আমাদেরকে ঠেকানোর ঘোষণা দিয়েছিলেন। ৯২ দিন তিনি অবরোধ করে রেখেছিলেন। কিন্তু তিনি ব্যর্থ হয়েছেন।’

বিএনপিকে মানুষ কেন ভোট দেবে এমন প্রশ্ন তুলে আওয়ামী লীগের সভাপতি বলেন, ‘যারা ক্ষমতায় থাকতে দেশে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছিল, যারা দেশের টাকা বিদেশে পাচার করেছে, যারা এতিমের সম্পদ আত্মসাৎ করেছে, তারা আবার কীভাবে ক্ষমতায় যাওয়ার স্বপ্ন দেখে?’

বর্তমান সংসদকে যারা অনির্বাচিত বলেন তাদের কড়া সমালোচনা করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি জানান, সম্প্রতি কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশন (সিপিএ) ও ইন্টার-পার্লামেন্টারি ইউনিয়নের (আইপিইউ) সম্মেলন বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হওয়াই এই সংসদের জন্য বড় স্বীকৃতি। তিনি বলেন, ‘সারা বিশ্বের জনপ্রতিনিধিদের যেন কোনো জ্ঞান নেই, আমাদের দেশের কয়েকটা লোকই যেন সব বুঝে গেছেন।’

এ সময় তিনি সিপিএ’র চেয়ারপারসনের দায়িত্ব পালন করা ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এবং আইপিইউ’র দায়িত্ব পালন করা সাবের হোসেন চৌধুরীর ভূয়সী প্রশংসা করেন। দুটি সম্মেলন সফলভাবে বাস্তবায়ন করায় তাদেরকে ধন্যবাদ জানান।

নিজের সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের চিত্র তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের কাছে ক্ষমতা ভোগের বস্তু নয়, জাতির প্রতি কর্তব্য, জাতির উন্নয়ন। সেটা করতে পেরেছি বলেই আমরা সারা বিশ্বে প্রশংসা কুড়াচ্ছি।’

সমাপনী বক্তব্যে সংসদের বিরোধী দলীয় নেত্রী দেশে গুমের চিত্র তুলে ধরে এ ব্যাপারে আশঙ্কা প্রকাশ করেন। এর জবাবে সংসদ নেত্রী বলেন, ‘গুম নতুন কিছু নয়। গুম অনেকভাবে হচ্ছে। কেউ ফেরতও আসছে। এটা কি শুধুই বাংলাদেশে? ২০০৯ সালে দুই লাখ ৭৫ হাজার ব্রিটিশ নাগরিক গুম হয়। ২০ হাজারের কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। উন্নত বিশ্বে এত গুম হলে আমাদের এখানে এটা অসম্ভব কিছু নয়। তবে আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

এ সময় তিনি কবি ও দার্শনিক ফরহাদ মজহারের ‘গুমের’ প্রসঙ্গ টেনে বলেন, একজন হঠাৎ গুম হয়ে গেছেন বলে খবর আসে। কিন্তু তিনি নিজে নিজেই খুলনায় গিয়ে নিউমার্কেট এলাকায় ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন।

যারা পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্রের বিরুদ্ধে কথা বলেন তাদেরও সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘কিছু লোকের কোনো কিছুই ভালো লাগে না। সবকিছুতে সমালোচনা। তাদের দেখলে তো হবে না। তারা সমালোচনা করবেই।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদেরকে বিদ্যুৎ দিতে হবে। তাদের কথা শুনলে হবে না। আজ ৮০ ভাগ মানুষ বিদ্যৎ পাচ্ছে। আমাদের লক্ষ্য শতভাগ মানুষকে বিদ্যুৎ দেয়া। সে লক্ষ্য বাস্তবায়নেই আমরা কাজ করে যাচ্ছি।’

এ সময় শেখ হাসিনা তার সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের কথা তুলে ধরেন। দেশকে এগিয়ে নিতে তার সরকারের সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনা রয়েছে বলেও জানান।

সমাপনী ভাষণে সংসদের এই অধিবেশন সফল করার পেছনে স্পিকার, ডেপুটি স্পিকারসহ যারা যেভাবে ভূমিকা রেখেছেন সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন সংসদ নেত্রী। তিনি সবাইকে ধন্যবাদ জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*