Home / ধর্ম ও জীবন / আড়াইহাজারের এমপির সঙ্গে মাওলানা হাবিবুরের বাগবিতণ্ডার ভিডিও ভাইরাল

আড়াইহাজারের এমপির সঙ্গে মাওলানা হাবিবুরের বাগবিতণ্ডার ভিডিও ভাইরাল

আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বইছে নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবুর সঙ্গে একটি ওয়াজ মাহফিলের অনুষ্ঠানে এক আলেমের বাগবিতণ্ডার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়ায় পুরো নারায়ণগঞ্জ জুড়ে । ওয়াজ মাহফিলের ওই অনুষ্ঠানে দেরীতে এসে ওয়াজের মধ্যখানে বক্তব্য দেওয়াকে কেন্দ্র করে এমপি বাবুর সঙ্গে মাওলানা হাবিবুর রহমান মিজবাহর মধ্যে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়। এমপি বাবু তর্কের এক পর্যায়ে ওই মাওলানাকে বেয়াদব বললে মাওলানাও এর প্রতিবাদ করেন। কিছুদিন আগে ঢাকায় একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে আড়াইহাজারের আওয়ামী লীগ দলীয় সাবেক এমপি এমদাদুল হক ভূঁইয়া প্রকাশ্যে এমপি বাবুর তির্যক বাক্যবাণে লাঞ্ছিত হয়েছেন। সেই রেশ কাটতে না কাটতেই একজন আলেমের সঙ্গে অসদাচরণের ঘটনায় আড়াইহাজারে খোদ সরকার দলীয় নেতাকর্মীরাই বিব্রত হয়ে পড়েছেন। গত শুক্রবার আড়াইহাজার পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের বাঘানগর এলাকায় আয়োজিত ওয়াজ মাহফিলে ওই ঘটনা ঘটে। ৬মিনিটের ভিডিও চিত্রে দেখা গেছে মাহফিলে এমপি বাবু উপস্থিত হলে সঞ্চালক মাইকে এমপি বাবুর আগমনের কথা ঘোষণা করে বলেন, আড়াইহাজার আওয়ামী লীগের এমপি নজরুল ইসলাম বাবু আমাদের মাঝে উপস্থিত হয়েছেন। তিনি সংক্ষিপ্ত আলোচনা রাখবেন আমরা সবাই শান্ত হয়ে বসবো। ওই সময় উপস্থিত অনেকে উঠে যাওয়া শুরু করলে এমপি বাবু তাদের উদ্দেশ্যে বলেন,এই যারা যারা যাবেন, কথা না বলে চলে যাও। একটা সাউন্ড করা যাবে না। বেয়াদব (মৃদু স্বরে উচ্চারণ করেন)।
ওই সময় মাওলানা হাবিবুর রহমান মিজবাহ বলেন, জীবনের প্রথম আমার বয়ানের মাঝখানে বয়ান বন্ধ করে কোন কথা হলো এবং এটাও প্রথম যে বয়ানের মাঝখানে কথা বলার পরে আমি আবার মাইক ধরে কথা বলছি।
তখন এমপি বাবু বলেন, এই শুনেন মাওলানা সাহেব এখানে আপনে ইয়ে করবেন না, মানে আপনার বয়ান আপনি করেন। তখন মাওলানা বলেন, আমার বয়ানই তো আমি করতেছি। তখন এমপি বাবু বলেন, আপনি বললেন কেন, “মাঝখানে আমি কথা বলি না” বললেন। আমি কি মাঝখানে কথা বলছি নাকি যারা আয়োজক….।
ওই সময় মাওলানা বলেন, আপনাকে তো দোষারোপ করছি না। এমপি বাবু বলেন, আপনি আমাকে দোষারোপ করবেন কেন? হোয়াই ইউ টক টু মি? (ধমকের স্বরে)। আপনি এখানে আমাকে নিয়ে কেন কথা বললেন?
মাওলানা বলেন, আপনাকে নিয়ে এখানে কে কথা বলল, আপনাকে দোষারোপ করা তো দুরের কথা আপনি আমাকে কেন কাউন্টার দিচ্ছেন। আপনাকে এখানে দোষারোপ করা হইছে? এমপি বাবু তখন রাগান্বিত হয়ে বলেন, আপনি কে? আপনি কে? (ভিডিওতে দেখা গেছে বাবু কে থামাতে তখন অন্য একজন উঠে আসে, পাশাপাশি শ্রোতারাও উঠে যান এবং আসরে উত্তেজনাকর পরিবেশ তৈরি হয়)। ওই সময় মাওলানা সবাইকে শান্ত হয়ে বসতে বলেন এবং বলতে থাকেন : লাইনটা দেন। (এ থেকে বোঝা যায় মাইকের লাইন বন্ধ করা হয়েছিল ঘটনার সময়)।
ওই সময় এমপি বাবু শ্রোতাদের উদ্দেশ্যে বলতে থাকেন, বসবেন না আমি বলছি। তিনি আরও বলেন, এই এখানে চিৎকার দিলো কে? কে চিৎকার দিল? কেন চিকলান দিলেন? তোমার বাড়ি কোথায় বলো? ওই সময় শ্রোতা নিজের নাম দোলোয়ার হোসেন বলে পরিচয় দিয়ে বলেন, চিকলান দিছি কারণ এখান থেকে অনেকে বলতেছে মাওলানাকে বেয়াদব। ওই সময় এমপি বাবু বলেন, তো তোমার কি, বেয়াদব বললে। তুমি কি করো? দেলোয়ার : ব্যবসা করি। ওই সময় এমপি বাবু বলেন, বেয়াদব কিন্তু একদম সারা জীবনের জন্য বলছি, বেয়াদবের জায়গা আড়াইহাজারে নাই। আড়াইহাজারে কোন বেয়াদব বসবাস করতে পারে না। আমরা কি লেখা পড়া করে আসি নাই।
ওই সময় মাওলানা বলেন, আপনি ভুল বুঝেছেন। আপনাকে বড় করার জন্যেই আমি বলছি। আমি এটাই বলতাম যে আপনার ব্যাপারে ভাল সংবাদ শুনছি বিধায় তাকে আমি এ সময়টা দিছি এবং বয়ান করতেছি। কিন্তু তার আগেই আপনি কাউন্টার দিছেন আমাকে। এমপি বাবু তখন বলেন, কি কাউন্টার দিছি? মাওলানা বলেন, আপনি বললেন কেন, এমপি বাবু তখন বলতে থাকেন, আপনার বয়ান আপনি করেন। দর্শককে উদ্দেশ্য করে বাবু প্রশ্ন ছোড়েন, এই আমি কোন খারাপ কথা বলছি উনাকে? (উপস্থিত শ্রোতারা উত্তর দেন, না না)।
উত্তরে মাওলানা বলেন, আপনাকে আমি খারাপ কথা কী বলেছি? উত্তরে বাবু বলেন, আপনি কেন, আপনি আমাকে নিয়া কথা বলবেন কেন?
মাওলানা তখন বলেন, আমি আপনাকে কোন কথা বলি নাই বরং আপনাকে বড় করার জন্যই তো কথাটা বলেছি। (এসময় পাশ থেকে কারো আওয়াজ শোনা যায় সে বলছে , হুজুর মাইকটা অফ করে কথা বলেন)
উত্তরে বাবু বলেন, মনে করছেন সব আপনার পক্ষে? সব আমার এলাকার লোক।
উত্তরে মাওলানা বলেন, আপনি যেটাইি মনে করেন এখানে উপস্থিত সবাই যদি আমার বিরুদ্ধেও যায় আমি পরোয়া করি না। আমি আপনারে ছোট করি নাই। আপনাকে কাউন্টার দেই নাই । পরিবেশ উত্তপ্ত আপনি করছেন এখানে।
পাশ থেকে বাবু বলেন, আপনি কেন আমাকে নিয়ে কথা বলেন। তার উত্তরে হুজুর বলেন, এখানে একটা কথাও আপনাকে নিয়ে বলিনি। বরং আপনার কাউন্টারে উত্তপ্ত হইছে। (পাশ থেকে বাবু উত্তেজিত কণ্ঠে বলেন, আরে কিসের কাউন্টার) হুজুর বলতে থাকেন: আপনি এখানে এসে হুমকি দিবেন। আপনি ভয় দেখাচ্ছেন এখানে সব লোক আপনার। আমি একটুও পরোয়া করি না, আমি আল্লাহকে পরোয়া করে কথা বলি।
বাবু বলেন আপনি তো বেয়াদব। (বলার সাথে সাথে দর্শকের সোরগোল শোনা যায়। পাশ থেকে কেউ বলে, কি শুরু করলেন বাদ দেন তো এগুলা)। তাইলে কি, পরোয়া করে কোন কিছু হইছে।
হুজুর বলেন, আপনি আবার আমাকে ভয় দেখাচ্ছেন কেন। আপনি কেন আবার অমাকে বেয়াদব বলছেন ।
মৃদু স্বরে বাবু অস্বীকার কের বলেন : আমি বেয়াদব বলছি?
হুজুর বলেন : এখন বলছেন বেয়াদব। এই মুহূর্তে বলছেন। (দর্শকদের মাঝে আবার সোরগোল শুরু হয়)। সারা বাংলাদেশের মানুষ আমাকে চিনে।।
বাবু: আপনাকে চিনে তো কি হইছে?
হুজুর: এতোগুলা মানুষের সামনে আপনে আমাকে বেয়াদব বললেন কেন? মাইকে কেন বেয়াদব বললেন।
বাবু: উনি কি কারণে, ওয়াজের মাঝখানে জীবনের প্রথম বয়ান থামালেন…..এইসব কথা বললেন।
হুজুর: আপনি মাইন্ডে নিলেন কেন। আমি আপনাকে খারাপ বলি নাই। (পাশ থেকে অন্য একজন হুজুর কে বোঝাচ্ছেন,উনি বুঝতে ভুল করছেন, উনি আমাদের আড়াইহাজারের প্রাণপ্রিয় এমপি মহোদয়) উনি তো আমাকে কথা শেষ করতে দিলেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*