Home / খবর / ’অন্ধ গলিতে আইসিটি‘ক্যান্সারে টেলিযোগাযোগ,

’অন্ধ গলিতে আইসিটি‘ক্যান্সারে টেলিযোগাযোগ,

‘ডাক ও টেলিযোগাযোগ খাত ক্যান্সারে আক্রান্ত। ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের নবনিযুক্ত মন্ত্রী  তথ্যপ্রযুক্তিবিদ মোস্তাফা জব্বার বলেছেন,  আর অন্ধ গলিতে রয়েছে আইসিটি বিভাগ।’

বুধবার বিকালে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই মন্তব্য করেন।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন এখনও ইন্টারনেটের দাম বেঁধে দিতে পারলো না। এটা তাদের ব্যর্থতা। এখনও ইন্টারনেটের দাম সাধারণ মানুষের ক্রয়সীমার মধ্যে নেই। তাই আমি আমার প্রথম কাজ হলো ইন্টারনেটের দাম কমিয়ে আনা। এজন্য যা যা করার দরকার আমি তাই করবো’।

এই দুইটি খাতকে সঠিক পথে আনতে করণীয় কি? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘একজন ডাক্তার যখন রোগীর রোগ সম্পর্কে সম্পূর্ণ জানেন এবং এর চিকিৎসাও জানেন তখন রোগ সারানো সময়ের ব্যাপার মাত্র। অন্ধ গলির শেষ দেয়ালটা ভেঙে দিলেই সমাধান মিলবে। আমি গত ৩০ বছর ধরে এই খাতে কাজ করছি। আমি জানি কোথায় সমস্যা? সমাধানটাও আমার জানা আছে।’

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের এই মন্ত্রী বলেন, ‘আমার হাতে সময় কম। মাত্র একটি বছর। আমাকে হেলে দুলে কাজ করলে চলবে না। আমার যা করার তা এই এক বছরেরই করতে হবে। এজন্য আপনারা আমাদের জানান কী কী করতে হবে।’

মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘বাংলাদেশের জনগণের যেভাবে ইন্টারনেট সুবিধা পাওয়ার কথা ছিল সেভাবে পাচ্ছে না। টেলিকম কোম্পানিগুলো সরকারের কাছে ব্যান্ডউইথ কিনে ডাটা হিসেবে বিক্রি করছে। তাদের এটা করতে দেয়া উচিত না। মোবাইল অপারেটরগুলো ভয়েস কলের জন্য মোবাইল টাওয়ার নির্মাণ করেছে। অথচ বেশি দামে ব্যবহারকারীদের কাছে ইন্টারনেট বিক্রি করছে। তাই আমার প্রথম প্রয়োরিটি ইন্টারনেটের দাম কমানো।’

টেলিযোগাযোগ ও আইসিটি খাতের নবনিযুক্ত মন্ত্রী বলেন, ‘শিগগিরই আমি বিটিআরসির সঙ্গে বসবো। তাদের সমস্যাটা কোথায় সেটা শুনতে হবে। তারপর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য উদ্যোগ নেবো। এতদিন আমি ইন্টারনেটের দাম কমানোর জন্য সরকারের কাছে দাবি করে আসছিলাম। এবার এই দাবি বাস্তবায়ন করা আমার দায়িত্ব।

সংবাদ সম্মেলনে বেসিসের কার্যনিবার্হীর কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*