Home / ফিচার / তথ্য সুরক্ষা আইন প্রণয়নের দাবি

তথ্য সুরক্ষা আইন প্রণয়নের দাবি

তথ্য চাওয়া হয় ডিজিটাল যুগে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে ব্যক্তির কাছে । জাতীয় পরিচয়পত্র, মেডিকেল রিপোর্ট, ভাড়াটিয়ার তথ্য ফরমের নামে যাবতীয় তথ্য দেয়া হলেও সেটি সঠিকভাবে রক্ষণাবেক্ষণ হবে কিনা সে বিষয়ে নাগরিকের কাছে কোনও তথ্য থাকেনা। এতে ব্যক্তিগত তথ্যের গোপনীয়তা হুমকির মুখে রয়েছে বলে মনে করছেন সামাজিক ও ডিজিটাল নিরাপত্তা সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা। রোববার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ‘আন্তর্জাতিক তথ্য সুরক্ষা দিবস উপলক্ষে’ সাইবার ক্রাইম অ্যাওয়ারনেস ফাউন্ডেশন আয়োজিত ‘প্রাইভেসি টক’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় বক্তরা বলেন,
বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে নাগরিকদের কাছে তথ্য চাওয়া হয়। কিন্তু সেটি সুরক্ষিত থাকবে কিনা, তা নিশ্চিত করে জানানো হয় না। ডিজিটাল বাংলাদেশ মানে শুধু ডিজিটাল সেবা দেওয়া নয়, বরং দেশের ১৬ কোটি মানুষ প্রতিনিয়ত ডিজিটালি যেসব তথ্য সংরক্ষণ করছেন সেগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করা।

আগামী দিনে জাতীয় স্বার্থে তথ্য সুরক্ষা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বিভিন্ন সেবা প্রদানের নামে অনেক প্রতিষ্ঠান প্রযুক্তি ব্যবহারকারীর তথ্য হাতিয়ে নিচ্ছে, যা দেশের জন্য অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। তথ্য সুরক্ষা আইন হলে তারা বিতাড়িত হবে। তাই দ্রুত আইন প্রণয়নের উদ্যোগের আহ্বান জানান তথ্য প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা। আলোচনায় অংশ নেন সরকারের তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের কন্ট্রোলার অব সার্টিফাইং অথরিটিজের (সিসিএ) নিয়ন্ত্রক (যুগ্ম-সচিব) আবুল মানসুর মোহাম্মদ সারফ উদ্দিন, সংগঠনের উপদেষ্টা প্রযুক্তিবিদ একেএম নজরুল হায়দার, যুক্তরাষ্ট্রের মেরিল্যান্ড ইউনিভার্সিটির সাইবার নিরাপত্তা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. এম পান্না ও যুক্তরাষ্ট্রের ইউনাইটেড স্টেটস অব ডিজিটাল সার্ভিসেসের (ইউএসডিএস) কোয়ালিটি অ্যাসুরেন্স ডিরেক্টর শেখ গালিব রহমান। অনুষ্ঠানের আয়োজন করে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সাইবার ক্রাইম অ্যাওয়ারনেস ফাউন্ডেশন। সহযোগিতায় ছিল প্রযুক্তি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান আগামীটেক ও মিডিয়া মিক্স কমিউনিকেশন্স। সভাপতিত্ব ও মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সংগঠনের আহ্বায়ক কাজী মুস্তাফিজ। সঞ্চালনা করেন সদস্য সচিব আব্দুল্লাহ হাসান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar