Home / আর্ন্তজাতিক / পুতিনের তুলনা ঈশ্বরের সঙ্গে

পুতিনের তুলনা ঈশ্বরের সঙ্গে

আগামী ১৮ই মার্চ রাশিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। খুব বেশি দেরি নেই।  সেই নির্বাচনকে সামনে রেখে বর্তমান প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে ঈশ্বরের সঙ্গে তুলনা করছে ক্রেমলিন। ওদিকে রাশিয়ার ওই নির্বাচনে যুক্তরাষ্ট্র প্রভাব বিস্তার করতে পারে বলে অভিযোগ তুলেছে মস্কো। অন্যদিকে রাশিয়ার বিরোধী নেতা অ্যালেক্সি নাভালনিকে একটি হুমকি হিসেবে দেখছে না সরকার। ক্রেমলিন মনে করছে রাজনৈতিক স্বর্গের (অলিম্পাস) নেতা হলেন ভ্লাদিমির পুতিন।

ক্রেমলিনের মুখপাত্র দমিত্রি পেসকভ বলেছেন, আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার বর্তমান প্রেসিডেন্টের সঙ্গে অন্য কেউ প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলতে পারবেন না। কারণ, জনগণ পুতিনকে একজন অদ্বিতীয় নেতা হিসেবে দেখে। তিনি হলেন স্বর্গীয় (অলিম্পাস) রাজনীতির নেতা। তার সঙ্গে এই সময়ে অন্য কেউ প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলতে পারবে না। এখানে উল্লেখ্য, প্রাচীন গ্রিক পুরাণ অনুসারে দেবতাদের পাহাড়ি আবাস ছিল অলিম্পাস। সেখানকার নেতা হিসেবে পুতিনকে আখ্যায়িত করলেন দমিত্রি পেসকভ। সরকারি মুখপাত্রের এমন বক্তব্যের পর রাশিয়ার নির্বাচন কোনপথে যাবে তা সহজেই অনুমান করে নেয়া যায়। সেখানে বিরোধী দল রাজপথে নামলেই তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়। সর্বশেষ বিক্ষোভ মিছিলেন বিরোধী নেতা অ্যালেক্সি নাভালনি নেতৃত্ব দেয়ার মাত্র কয়েক মিনিটের মধ্যে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। ফলে পুতিনের বিরুদ্ধে টেক্কা দেয়ার ক্ষেত্রে যে পরিবেশ প্রয়োজন তা দৃশ্যত পাচ্ছেন না নাভালনি। তাছাড়া প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তাকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এর বাইরে যা দু’চারজন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অংশ নেবেন বলে শোনা যাচ্ছে তারা হালে পানি পাবেন না। ফলে পুতিনই হতে পারেন নতুন মেয়াদে আবার প্রেসিডেন্ট। এমনটাই মনে করেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। বিরোধী নেতা অ্যালেক্সি নাভালনির সমালোচনা করেছেন ক্রেমলিনের মুখপাত্র দমিত্রি পেসকভ। তিনি বলেছেন, রোববার দেশজুড়ে যে বিক্ষোভ আয়োজন করেন নাভালনি তাতে অল্প সংখ্যক মানুষ যোগ দিয়েছিল। তবে মিডিয়ার খবরগুলো বলছে অন্যকথা। তাতে বলা হচ্ছে, হাজার হাজার মানুষ যোগ দিয়েছিল ওই বিক্ষোভে। রোববার ক্রেমলিনের কাছেই একটি স্কয়ারে সমবেত হয়েছিলেন প্রায় ১৫০০ বিক্ষোভকারী। আরো কয়েক শত বিক্ষোভকারী যোগ দেয় রাশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর সেন্ট পিটার্সবুর্গে। এ ছাড়া বিক্ষোভ হয়েছে প্রায় সব শহরে। এর মধ্যে মস্কোর একটি র‌্যালিতে অ্যালেক্সি নাভালনি উপস্থিত হওয়ার কয়েক মিনিটের মধ্যে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার নিজের টুইট একাউন্টে ওই সময়কার বেশ কিছু নাটকীয় ফুটেজ পোস্ট করা হয়েছে। আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তাকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এর অর্থ ১৮ই মার্চের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে পথের কাঁটাটি সরিয়ে ফেলেছেন সাবেক কেজিবির প্রধান ভ্লাদিমির পুতিন। ফলে আসন্ন ওই নির্বাচনকে নাভালনি জালিয়াতির নির্বাচন বলে আখ্যায়িত করেছেন এবং ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন নির্বাচন বর্জনের। ক্রেমলিন কি অ্যালেক্সি নাভালনিকে হুমকি হিসেবে দেখে? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে দমিত্রি পেসকভ বলেনÑ না।
সরাসরি এভাবে নাভালনিকে রাশিয়ার রাজনীতি থেকে উড়িয়ে দেয়ার মাধ্যামে তারা পুতিনের পথ পরিষ্কার করেছে, এটা স্পষ্ট। এ ছাড়া দমিত্রি পেসকভ রাশিয়ার নির্বাচনে যুক্তরাষ্ট্র প্রভাব খাটাতে পারে বলে অভিযোগ এনেছেন। ওদিকে আগামী সোমবারের মধ্যে নতুন অবরোধের ঘোষণা দিতে পারে যুক্তরাষ্ট্র। এতে রাশিয়ার বিরুদ্ধে অবরোধের আওতা বাড়ানো হতে পারে। তবে এতে রাশিয়ার নির্বাচনে কোনো প্রভাব ফেলতে ব্যর্থ হবে যুক্তরাষ্ট্রÑ এমনটা মনে করেন দমিত্রি পেসকভ। ২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়া হস্তক্ষেপ করেছিল বলে অভিযোগ আছে। এ অভিযোগ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক পরিস্থিতি নির্বাচনের পর থেকেই ঘোলা। ফলে মস্কো ও ওয়াশিংটনের মধ্যে একটি উদ্ভট পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। এমন হস্তক্ষেপের অভিযোগ অস্বীকার করেছে রাশিয়া। সম্প্রতি রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে যে, রাশিয়া কানেকশন নিয়ে তদন্তে থাকা আইন মন্ত্রণালয়ের স্পেশাল কাউন্সেল রবার্ট মুয়েলারকে বরখাস্ত করার চেষ্টা করেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar