Home / খবর / প্রশ্ন ফেসবুকে এবার পরীক্ষা শুরুর পৌনে এক ঘণ্টা আগে

প্রশ্ন ফেসবুকে এবার পরীক্ষা শুরুর পৌনে এক ঘণ্টা আগে

প্রশ্ন ফেসবুকে এসেছিল পরীক্ষা শুরুর ২৪ মিনিট আগে এসএসসি পরীক্ষার প্রথম দিন বাংলা প্রথম পত্রের। দ্বিতীয় পরীক্ষা বাংলা দ্বিতীয় পত্রের প্রশ্ন এসেছে আরও ২০ মিনিট আগে।

পরীক্ষা শুরুর পৌনে এক ঘণ্টা আগে সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হল প্রশ্নেই নেয়া হয়েছে পরীক্ষা।

এবার এসএসসি পরীক্ষা শুরুর আগে প্রশ্ন ফাঁস রোধে সামাজিক মাধ্যম সাময়িকভাবে বন্ধ রাখার প্রস্তাব রেখেছিলেন শিক্ষামন্ত্রী। কিন্তু তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় বা বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরটি সে পরামর্শ গা করেনি।

কিন্তু শেষমেশ ফেসবুকসহ সামাজিক মাধ্যগুলোতেই ছড়াচ্ছে প্রশ্ন।

ফেসবুকে SSC Question Out’, ‘PSC_JSC_SSC_HSC_Degree out question bank.(R)’, ‘SSC Question OuT 100% Common All Board & Rezult Change 2018+19+20 All BD’, ‘PSC JSC SSC HSC All Exam 100% Common Suggestion & Out Questions’ ইত্যাদি গ্রুপে বৃহস্পতিবার থেকেই প্রশ্ন ফাঁস করার বিষয়ে বিজ্ঞাপন চলে আসছিল।

গ্রুপে বিভিন্ন জন বিনামূল্যে প্রশ্ন দেয়ার কথা জানিয়ে তাদের সঙ্গে যোগাযোগের পরামর্শ দিচ্ছিলেন।

শনিবার সকাল ১০টা থেকে বাংলা দ্বিতীয় পত্রের পরীক্ষা শুরুর আগে সকাল সোয়া ৯টার মধ্যেই উত্তরসহ ‘খ’ সেট বহুনির্বাচনী প্রশ্ন এসব গ্রুপে ফাঁস করা হয়। পরে তা অন্যান্য সামাজিক মাধ্যমেও ছড়িয়ে যায়। এসব প্রশ্নে সঙ্গে পরীক্ষায় আসা প্রশ্নের মিলও পাওয়া গেছে।

পরে ঢাকা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক তপন কুমার সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি দাবি করেন, তারা কোনো তথ্যপ্রমাণ পাননি। এ বিষয়ে খোঁজ খবর নেবেন তারা।

জানতে চাইলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা আফরাজুর রহমান দাবি করেন, প্রশ্ন ফেসবুকে গেছে দুইটার পরে। পরীক্ষা শেষ হয়েছে বেলা একটায়। এটাকে কি আপনারা প্রশ্ন ফাঁস বলবেন?

পরীক্ষা শুরুর আগে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ জানিয়েছিলেন, প্রশ্ন ফাঁসের প্রমাণ মিললে পরীক্ষা সঙ্গে সঙ্গে বাতিল করা হবে।

পরীক্ষা শুরুর দিন রাজধানীতে একটি কেন্দ্র পরিদর্শনে গিয়েও মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা খুবই ডেসপারেট, খুবই অ্যাগ্রেসিভ এ (প্রশ্ন ফাঁস) বিষয়ে। যদি কোথাও কেউ কোনোভাবে প্রশ্ন ফাঁসের চেষ্টা করে, তিনি কোনোভাবেই রেহাই পাবেন না। কী হবে, আমিও সেটা ধারণা করতে পারি না। চরম একটা ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

তাহলে আজকের পরীক্ষা কেন বাতিল করা হয়নি-এ বিষয়ে জানতে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে তার মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি।

তবে শুক্রবার মন্ত্রী বাংলা প্রথম পত্রের পরীক্ষার প্রশ্ন ফেসবুকে আগেই আসা নিয়ে কথা বলেছিলেন। তিনি সেদিন দাবি করেন, ফেসবুকে যে প্রশ্ন এসেছে, সেটার সঙ্গে বাস্তবের মিল নেই। আর যেটার সঙ্গে মিল আছে, সেটা পরীক্ষা শুরুর পরে গেছে ফেসবুকে।

মন্ত্রী বলেন, কোনো ছাত্র পরীক্ষা শেষ করার আগেই হল থেকে বের হয়ে যেতে পারে। কাজেই এটা নিয়ে চিন্তার কিছু নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*