Home / খেলা / নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ দল

নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ দল

প্রথম ইনিংসে মাত্র ১১০ রানে অলআউট, ঢাকা টেস্টে বড়ই করুণ অবস্থা। বড় হারের সামনে বাংলাদেশ। গত তিন বছর দেশের মাটিতে শক্তিশালী দল হয়ে ওঠা বাংলাদেশের এ দূরাবস্থা কেন? ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতা তো বটেই, দল নির্বাচনকেও কাঠগড়ায় দাঁড় করাচ্ছেন বিসিবির সাবেক পরিচালক খন্দকার জামিল উদ্দিন।

ঢাকা টেস্টে দল নির্বাচন নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করে ঢাকাটাইমসকে তিনি বলছিলেন,‘ মোসাদ্দেককে দিয়ে  কেন লিগ খেলানো হচ্ছে? এ কেমন কথা! চট্টগ্রামে সে বড় ইনিংস খেলতে পারেনি, ঠিক আছে। কিন্তু রিয়াদের সঙ্গে ওর জুটিটা না হলে তো বাংলাদেশ হেরে যেত। সে ৫৩ বলে ৮ রান করেছে।  ৮ রান বড় স্কোর নয় অবশ্যই। তবে রিয়াদকে তো সে অনেক সময় সঙ্গ দিয়েছে। এই দিকটাও দেখতে হবে। তাকে ঢাকা টেস্টে একাদশে রাখা উচিৎ ছিল। সাব্বিরকে কেন আনা হলো? সে তো ফর্মে নেই। টেস্টে তার টেকনিকও তেমন ভালো না। ওর চেয়ে মোসাদ্দেকের টেকনিক অনেক ভালো। দল ও একাদশ নির্বাচনে এতো অস্থিরতা কেন?’

খন্দকার জামিল যোগ করেন,‘ নাঈম, তানবীরকে কেনো নেওয়া হলো, আবার কেনোইবা বাদ দেওয়া হলো! চট্টগ্রামে কেন রাজ্জাক নিয়ে আবার ঢাকায় ঢাকায় ফেরত পাঠানো হলো। ঢাকা টেস্টে তাকে তো দলে নেওয়া হয়েছে নানাবিধ চাপে।কেন এত সিদ্ধান্তহীনতা? শ্রীলঙ্কার রোশেন ডি সিলভার প্রথম শ্রেনীর ক্রিকেটে ২৮টি সেঞ্চুরি। সে ২৯ বছর বয়সে টেস্ট দলে জায়গা পেয়েছে। অথচ নাঈমরা এতো ভালো ব্যাটিং করে নির্বাচকদের নজর কাড়তে পারছেন না।’

অবশ্য ভুল দল নির্বাচনের চেয়ে ব্যাটিং ব্যর্থতাই মিরপুরে করুণ অবস্থার জন্য দায়ি করছেন সাবেক বিসিবির এ পরিচালক। এত অল্প রানে আউট হওয়ার যৌক্তিকতা খুঁজে পাচ্ছেন না তিনি।বলছিলেন,‘ উইকেট নিয়ে অনেক কথা হচ্ছে। উইকেট ব্যাটসম্যানদের জন্য কঠিন হতে পারে, কিন্তু ১১০ রানে অলআউট হওয়ার মতো নয়। আসলে একটা দুই ব্যাটসম্যানের উপর ভরসা করে কোনো দল বেশিদূর যেতে পারে না। তামিম, মুশফিক, মুমিনুল রান পাননি, ব্যস। বাংলাদেশ শেষ। দুই তিনজন ব্যাটসম্যান নিয়ে বড় দল হওয়া সম্ভব নয়। ফিল্ডিংও খুব বাজে ছিল।সাব্বির বেশ কয়েকটা ক্যাচ ছেড়েছেন। ওগুলো ধরতে পারলে শ্রীলঙ্কা ১৬০ রানে অলআউট হয়ে যেত।’

সামনে দলের হাল ধরার মতো ভালো প্রতিভাও দেখতে পারছে না তিনি।বাংলাদেশ দলের পাইপলাইনে হতাশা ব্যক্ত করে খন্দকার জামিল বলেন,‘ টেস্ট হলো টেকনিকের খেলা। আপনি টেস্টে ভালো মানে সব ফরম্যাটেই ভালো। কিন্তু টেস্ট খেলার মতো ব্যাটসম্যান আমাদের হাতে গোনা। ৪/৫ খেলোয়াড়ের উপর ভরসা করে আর ক’বছর চলবে! পাইপলাইনের অবস্থাও তো ভালো দেখছি না।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar