Home / প্রশাসন / কোনো মূল্য নেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর: মওদুদ

কোনো মূল্য নেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর: মওদুদ

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের কোনো মূল্য নেই পুলিশ বাহিনীর কছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি নেতা মওদুদ আহমদ। নইলে মন্ত্রী বলার পরও কীভাবে বিএনপির কালো পতাকা প্রদর্শন কর্মসূচিতে বাধা আসে, সেটি জানতে চেয়েছেন সাবেক আইনমন্ত্রী।

শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ ইয়ূথ ফোরামের ১২ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে এক আলোচনায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এই মন্তব্য করেন। দুর্নীতির মামলায় সাবেক বিএনপি প্রধান খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি তুলে ধরা হয় এই যুব সমাবেশে।

একই দিন সকালে বিএনপিকে কালোপতাকা প্রদর্শন কর্মসূচি পালন করতে চেয়নি পুলিশ। রঙিন পানি ও কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে কর্মসূচি ভণ্ডুল করে দেয় বাহিনীটি।

এই বিষয়টির উল্লেখ করে মওদুদ বলেন, ‘আজকে বাংলাদেশকে অলমোস্ট একটা পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত করা হয়েছে। আজকে আমাদের শান্তিপূর্ণ একটা অনুষ্ঠান ছিল। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন শান্তিপুর্ণ অনুষ্ঠানে সরকার বাধা দেবে না। উনার বক্তব্য আজকে বেড়িয়েছ, কিন্তু বাধা দেওয়া হয়েছে।

‘হয় উনার নেতৃত্বে, না হয় উনার কথা কোনো মুল্য নেই। উনি সত্য কথা বলেছেন। কিন্তু উনার কথা কার্যকর করার জন্য যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী রয়েছে তারা তা করেন নাই।’

‘উনি (স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী) এক কথা বললেন, আর আইজি সাহেব যারা পুলিশ চালান তারা বললেন আরেক কথা। তাহলে মনে হয় সরকারের মধ্যে বিরাট একটি সমন্বয়হীনতা আছে।’

মওদুদ বলেন, ‘পুলিশ বাহিনী এই সরকার চালাচ্ছে। পুলিশ বাহিনী এখন সরকারের মানে দল হিসেবে আওয়ামী লীগের চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। সেজন্য তারা তাদের মাধ্যমে এই কাজগুলো করাচ্ছে। অথচ পুলিশের দায়িত্ব-কর্তব্য হল দেশের আইনশৃঙ্খলা দেখা, নিয়ন্ত্রণ রাখা। সে দিকে তারা চরম ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে।’

বিএনপি কোনো ধরনের সংঘর্ষে যেতে চায় না দাবি করে মওদুদ বলেন, ‘আমাদের নেত্রী বলে গেছেন কোনো হটকারিতা চলবে না। সেজন্য আমাদের সমাবেশ করতে না দেওয়ায় কালো পতাকা প্রদর্শন কর্মসূচি ছিল। যে আমরা গাড়ি বা রাস্তা ব্লক করছি না, কোনো রকমের কোনো অনিয়ম করছি না। আমরা রাস্তায় দাঁড়িয়ে কালো পতাকা প্রদর্শন করছি। এরকম একটি শান্তিপুর্ণ কর্মসূচি করছি তাতেও বাধা।’

‘আজকে লাঠিচার্জ করছেন, গ্যাস দিয়েছেন, জলকামান মেরে একেবারে আমাদের মহাসচিবসহ সবাই ভিজে গেছেন। তো এই রকমের আচরণ সরকার যে করে, তাদের কাছ থেকে আমরা অবাধ, সুষ্ঠ নিরপেক্ষ নির্বাচন প্রত্যাশা করি না।’

‘সেজন্য আন্দোলন করতে হবে। নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে হবে এবং শান্তিপুর্ন আন্দোলনের মাধ্যমে এই সরকারকে বাধ্য করা হবে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার গঠন করতে। আমরা সেই দিনের অপেক্ষায় থাকব।’

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, ২০ দলীয় জোটের শরিক জাপার প্রসিডিয়াম সদস্য আহসান হাবিব লিংকন,  বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের রহমাতুল্লাহ আয়োজক সংগঠনের সভাপতি মুহম্মদ সাইদুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল হক চৌধুরী প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar