অক্সফোর্ডের টিকা দেয়ার সুপারিশ সব বয়সীদের জন্য

31

সব বয়সী প্রাপ্ত বয়স্কদের দেয়ার জন্য সুপারিশ করেছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে পরামর্শদাতা বিজ্ঞানীরা অক্সফোর্ড/এস্ট্রাজেনেকার টিকা । কিছু দেশে ৬৫ বছরের ওপরে বয়সীদের ক্ষেত্রে এই টিকার কার্যকারিতা নিয়ে সংশয় থাকায় তারা এই বয়সীদের অক্সফোর্ডের টিকা দেয়া থেকে বিরত থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর প্রেক্ষিতে বিজ্ঞানীরা ওই পরামর্শ দিয়েছেন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন স্কাই নিউজ। উল্লেখ্য, দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনা ভাইরাসের যে নতুন ভ্যারিয়েন্ট বা ধরণ শনাক্ত করা হয়েছে, তার বিরুদ্ধে এই টিকা কম কার্যকর বলে মনে করা হয়েছে। এক্ষেত্রে তারা স্বল্প পরিসরে পরীক্ষা চালিয়ে এমন ফল পেয়েছে। তারপর অক্সফোর্ডের টিকা দেয়া সাময়িক স্থগিত করেছে। কিন্তু বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার স্ট্রাটেজিক এডভাইজরি গ্রুপ অব এক্সপার্টস অন ইমিউনাইজেশনের চেয়ারম্যান ড. আলেজান্দ্রো ক্রাভিওটো বলেছেন, দক্ষিণ আফ্রিকায় ক্লিনিক্যাল পরীক্ষার যে ডাটা আমরা পেয়েছি তাতে দেখা যাচ্ছে ৬৫ বছরের ওপরে বয়সী খুব কম সংখ্যক স্বেচ্ছাসেবী অংশগ্রহণকারী ছিলেন।

তবে ৬৫ বছর বা তারো বেশি বয়সীদের ক্ষেত্রে কার্যকারিতা ভিন্ন ভিন্ন হতে পারে। আমরা মনে করি এই বয়সসীমার মানুষগুলোকে আলাদা কোনো গ্রুপের হিসেবে ভাবা উচিত নয়। তাদেরকে তরুণ বয়সীদের মতো গ্রুপে ফেলা উচিত। যেহেতু আমরা করোনার টিকা দেয়ার ক্ষেত্রে যে রোডম্যাপ করেছি সেখানে ৬৫ বছরের ওপরের মানুষদের অগ্রাধিকারে রেখেছি। এ জন্য নিরাপত্তা ও রোগমুক্তকরণের অধীনে আমরা ১৮ বছর বয়সী থেকে শুরু করে তদুর্ধ্ব মানুষকে এই টিকা দেয়ার সুপারিশ করেছি। এক্ষেত্রে সর্বোচ্চ কত বয়স পর্যন্ত টিকা দেয়া যাবে তার কোনো সীমা নেই। তিনি বলেন, এর অর্থ হলো যেসব মানুষের বয়স ৬৫ বছরের ওপরে তাদেরকেও এই টিকা দেয়া যাবে।