Home / খবর / ‘অপারেশন সুন্দর’ মুক্তির অপেক্ষায় র‌্যাব নির্মিত চলচ্চিত্র

‘অপারেশন সুন্দর’ মুক্তির অপেক্ষায় র‌্যাব নির্মিত চলচ্চিত্র

‘অপারেশন সুন্দরবন’ চলচ্চিত্রের শুটিং সম্পন্ন হয়েছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন-র‌্যাব নির্মিত । আজ সোমবার ভোরে চলচ্চিত্রটির শেষ পর্বের শুটিং শেষ হয়।

স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তিতে আগামী ২৬ মার্চ চলচ্চিত্রটি মুক্তি পেতে পারে। সুন্দরবন জলদস্যু ও বনদস্যু মুক্ত নিয়ে গত বছরের ২০ ডিসেম্বর চলচ্চিত্রটির শুটিং শুরু হয়।

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার উপপরিচালক মেজর হুসাইন রইসুল আজম মনি ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘আজ ভোরে সিনেমাটির শেষ পর্বের শুটিং সম্পন্ন হয়েছে। প্রায় ৪৫ দিন চলচ্চিত্রটির শুটিং হয়। এতে দেশের বিভিন্ন অভিনেতা-অভিনেত্রী ছাড়াও ভারতীয় শিল্পিরা অংশ নিয়েছে। আশা করছি, আগামী ২৬ শেষ মার্চ দেশবাসীকে একটি আন্তর্জাতিক মানের চলচ্চিত্র উপহার দিতে পারব।’

এর আগে ৩১ অক্টোবর র‌্যাব সদরদপ্তরে এক সংবাদ সম্মেলন বাহিনীটির মুখপাত্র বলেন, ‘২০১২ সালের প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে র‌্যাব পরিচালককে প্রধান সমন্বয়কারী করে সুন্দরবনের জলদস্যু দমনের টাস্ক-ফোর্স গঠনের মাধ্যমে জলদস্যুমুক্তকরণ প্রক্রিয়া শুরু হয়। লিড এ্যজেন্সি হিসেবে র‌্যাব ২০১২ সাল থেকে সুন্দরবনে জোরালো অভিযান পরিচালনা করে আসছে। অভিযানে গ্রেপ্তার হয় ২৬২ জন জলদস্যু। একের পর এক অভিযানে ফেরারি জীবনের অবসান ঘটিয়ে আত্মসমর্পণের পথ বেছে নেয় জলদস্যুরা। প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনক্রমে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে ও র‌্যাবের কর্মতৎপরতায় ২০১৬ সালের ৩১ মে থেকে ১ নভেম্বর ২০১৮ পর্যন্ত সুন্দরবনের ৩২ দস্যুবাহিনীর ৩২৮ জন সদস্য ৪৬২টি অস্ত্র ও বিপুল পরিমাণ গোলাবারুদসহ আত্মসমর্পণ করে।

সিনেমাটির পরিচালনা করছেন দেশ সেরা চলচ্চিত্র নির্মাতা দীপঙ্কর দীপন। যাতে অভিনয় করছেন চিত্রনায়ক রিয়াজ, সিয়াম আহমেদ, রৌশান, নুসরাত ফারিয়া, শতাব্দী ওয়াদুদ, সামিনা বাশার, ভারতীয় শিল্পি দর্শনা বনিক, টুয়া চক্রবার্তীসহ প্রায় ১৩শ আর্টিস্ট। এটি একটি ব্যয়বহুল সিনেমা বলছে র‌্যাব। যেখানে অসাধারণ কিছু দৃশ্যের পাশাপাশি উন্নত কারিগরি ছোঁয়া রয়েছে।

বাহিনীটির আইন ও গণমাধ্যম শাখার সার্বিক তত্বাবধানে চলচ্চিত্রটির নির্মাণ কাজ শুরু হয়। প্রজেক্ট ডিরেক্টর হিসেবে রয়েছেন র‌্যাব মুখপাত্র লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ, এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর মেজর হুসাইন রইসুল আজম মনি এবং প্রজেক্ট সহকারী ডিরেক্টর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার সুজয় সরকার। চলচ্চিত্র তৈরিতে দীর্ঘ প্রায় আড়াই বছর ধরে গবেষণা, পূর্ব প্রস্তুতি ও পরিকল্পনা করে র‌্যাব।

সুন্দরবন জলদস্যু মুক্ত হওয়া নিয়ে র‌্যাব মুখপাত্র জানান, ২০১৮ সালের ১ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সুন্দরবনকে জলদস্যুমুক্ত ঘোষণা করেন। এরপর সুন্দরবনে এখন শান্তির সুবাতাস বইছে। অপহরণ ও হত্যাও বন্ধ হয়েছে। বিশেষ করে জেলেদের উপার্জিত অর্থের ভাগ কাউকে দিতে হচ্ছে না। মাওয়ালী, বাওয়ালী, বনজীবী, বন্যপ্রাণী এখন সবাই নিরাপদ। নির্ভয় নির্বিঘ্নে আসছে দর্শনার্থী, পর্যবেক্ষক ও জাহাজ বণিকেরা। সুন্দরবনকেন্দ্রিক অর্থনৈতিক গতিশীলতার ব্যাপক সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচিত হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: