আর্টিজান-কাণ্ডে জাইকা কার্যক্রম গুটিয়ে নিতে পারে

2

wall-street-journalpic_118970

ঢাকা : জাপানের উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জাইকা ) জাপান বাংলাদেশ থেকে তাদের কার্যক্রম গুটিয়ে নেয়ার চিন্তাভাবনা করছে। গুলশানের স্প্যানিশ রেস্তোরাঁ হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলায় সাত জন জাপানি নাগরিক নিহত হওয়ার ঘটনায় বাংলাদেশে জাপানের কার্যক্রম তুলে নেয়ার চিন্তাভাবনা করছে জাপান সরকার।বাংলাদেশের অন্যতম উন্নয়ন সহযোগী জাপান। গুলশানের ঘটনার পর জাপানের উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জাইকা ) বাংলাদেশ থেকে তাদের কার্যক্রম গুটিয়ে নেয়ার চিন্তাভাবনা করছে। গতকাল রবিবার যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল সংস্থাটির এক মুখপাত্রের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে।

সংস্থাটির সর্বশেষ বার্ষিক প্রতিবেদনে দেখা গেছে, ২০১৪ সালের এপ্রিল থেকে ২০১৫ সালের মার্চ পর্যন্ত বাংলাদেশে বিভিন্ন উন্নয়ন সহযোগিতা প্রকল্পে ৪৭৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করেছে জাপান। সর্বশেষ ঢাকার বহু প্রতীক্ষিত মেট্রোরেল প্রকল্প বাস্তবায়নে জাইকার সঙ্গে চুক্তি করেছিল বাংলাদেশ সরকার। শুক্রবার হলি আর্টিজানে যেসব জাপানি নাগরিক নিহত হয়েছেন, তারা ওই মেট্রোরেল প্রকল্পে কর্মরত ছিলেন। এদের মধ্যে তিন প্রকৌশলীকে পাঠিয়েছে টোকিওর ওরিয়েন্টাল কনসালটেন্টস গ্লোবাল এবং অপর চারজনকে পাঠিয়েছে কাতাহিরা অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্টারন্যাশনাল।

জাইকার এক নারী মুখপাত্র জানিয়েছেন, এই হত্যাকাণ্ডের পর তাদের সংস্থা বাংলাদেশ থেকে কর্মকাণ্ড গুটিয়ে নেয়ার চিন্তাভাবনা করছে।

গুলাশানের ঘটনায় জাপানের প্রধানমন্ত্রী রবিবার (৩ জুলাই) এক বিবৃতিতে বলেছেন, ঢাকায় এই সন্ত্রাসী হামলা অগ্রহণযোগ্য। এই ঘটনায় আমি ভীষণভাবে ক্ষুব্ধ। ঢাকায় যে সাতজন নিহত হয়েছেন, তারা সবাই সেখানে গিয়েছিলেন বাংলাদেশেরই কল্যাণের জন্য।