ব্রেকিং নিউজ
Home / আর্ন্তজাতিক / আর্মেনিয়া-আজারবাইজান তৃতীয় যুদ্ধবিরতিও ভাঙল

আর্মেনিয়া-আজারবাইজান তৃতীয় যুদ্ধবিরতিও ভাঙল

স্থানীয় সময় সোমবার সকালে যুদ্ধবিরতি হওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই পাল্টাপাল্টি হামলার মধ্যে দিয়ে আবারও যুদ্ধ শুরু হয়েছে। নাগর্নো-কারাবাখ নিয়ে আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের মধ্যকার হওয়া তৃতীয় যুদ্ধবিরতিও লঙ্ঘিত হয়েছে। খবর ডয়েচে ভেলের

যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায় শুক্রবার এই দুই দেশের মধ্যে দীর্ঘ বৈঠক হয়। রবিবার শেষ পর্যন্ত তৃতীয় বারের মত ‘মানবিক যুদ্ধবিরতি’র সিদ্ধান্তে পৌঁছায় দুই পক্ষ। এরপর সোমবার সকালে যুদ্ধবিরতি হলেও কয়েকঘণ্টা পরে সেই যুদ্ধবিরতি ভঙ্গের অভিযোগ আনে দুই পক্ষই।

আজারবাইজানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সোমবার সকালে সমস্ত দায় চাপিয়ে দিয়েছেন আর্মেনিয়ার উপর। অন্য দিকে আর্মেনিয়ার প্রশাসন দায় চাপাচ্ছে আজারবাইজানের উপর। প্রায় এক মাস ধরে নাগর্নো-কারাবাখ নিয়ে যুদ্ধে জড়িয়েছে আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজান। প্রথম থেকেই দুই দেশকে শান্তি বৈঠকে বসানোর চেষ্টা করছে রাশিয়া। দুইবার যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবও হয় রাশিয়ার মধ্যস্থতায়। কিন্তু যুদ্ধবিরতি ঘোষণা হওয়ার কয়েক মিনিটের মধ্যেই তা লঙ্ঘন করেছে দুইটি দেশ।

এরই মধ্যে গত সপ্তাহে ফের দুই দেশকে আলোচনার টেবিলে বসায় মস্কো। গত বৃহস্পতিবার মস্কোয় রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর উপস্থিতিতে বৈঠক করেন আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। কিন্তু তাতেও জট খোলেনি।

এর পর প্রথমে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এবং পরে মার্কিন কূটনীতিবিদদের সঙ্গে বৈঠক করেন আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজানের প্রতিনিধিরা। দীর্ঘ বৈঠকের পর রবিবার সন্ধ্যায় নতুন করে যুদ্ধবিরতির সিদ্ধান্ত হয়। যুক্তরাষ্ট্র, আজারবাইজান এবং আর্মেনিয়া যৌথ বিবৃতি প্রকাশ করে। সেখানে বলা হয় মানবিক কারণে সোমবার সকাল আটটা থেকে যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করা হচ্ছে।

কিন্তু সোমবার সকাল হতেই আজারবাইজানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দাবি করেন, আজারি শহর টারটারে আক্রমণ চালিয়েছে আর্মেনিয়া। সেখানে শেলিং করা হয়েছে। পাল্টা অভিযোগ করে আর্মেনিয়াও। তাদের দাবি, আজারি ফৌজ প্রথম যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করেছে।

তৃতীয়বার যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব নিয়ে রবিবার থেকেই বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন উঠছিল। রবিবার সকালে আজারবাইজানের প্রেসিডেন্টের একটি টুইটে সেই প্রশ্ন আরও গুরুত্ব পায়। তিনি লিখেছিলেন, নিজের দেশকে রক্ষা করার অধিকার সকলের আছে। আজারবাইজান নিজের দেশকে শেষ দিন পর্যন্ত রক্ষা করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: