ইজতেমার আখেরি মোনাজাতে দ্বিতীয় পর্বের সমাপ্তি

14

 বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের আখেরি মোনাজাত মুসলিম উম্মাহর কল্যাণ, সুদৃঢ় ঐক্য, আখেরাত ও দুনিয়ার শান্তি কামনার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হলো। আজ রোববার দুপুর সোয়া ১২টায় টঙ্গীর তুরাগ তীরে লাখো মুসল্লির অংশগ্রহণে শুরু হয় আখেরি মোনাজাত। ৩০ মিনিট স্থায়ী বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ এ আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেন মাওলানা সাদ কান্ধলভীর বড় ছেলে মাওলানা ইউসুফ বিন সাদ কান্দলভী।

এদিন শীত আর কুয়াশা উপেক্ষা করে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে সকাল থেকেই মানুষ বিভিন্ন যানবাহনে ও পায়ে হেঁটে ময়দানে জড়ো হন। ফলে ভোর থেকেই ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে মানুষের ঢল নামে। এ ছাড়া দেশ বিদেশের কয়েক লাখ ধর্মপ্রাণ মুসল্লি গত তিনদিন ধরে ইজতেমায় অংশ নেন।

ইজতেমার মাঠে যাদের জায়গা হয়নি তারা আশপাশের বাসাবাড়ি, ভবন, ভবনের ছাদ কিংবা করিডোর, সড়কের পাশে ফুটপাতে এমনকি গাছতলায় অবস্থান নিয়েছেন। পত্রিকা, পাটি, চট, জায়নামাজ, পলিথিন বিছিয়ে অনেকে বসেছিলেন রাস্তায়।

এর আগে ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের মিডিয়া সমন্বয়ক মোহাম্মদ আবু সায়েম জানান, আজ সকাল পর্যন্ত সৌদি আরব, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জার্মানি, মালয়েশিয়া, ফিলিপিন্সসহ ৬২টি দেশ থেকে ৭ হাজার ৯২১জন বিদেশি মেহমান ইজতেমায় যোগ দেন।

প্রতিবছর বিশ্ব ইজতেমায় অংশ নেয় কয়েক লাখ মানুষ। তাদের মধ্যে তাবলীগ জামাতের বিদেশি অনুসারী থাকেন ৩০ থেকে ৪০ হাজার। তাবলীগ জামাতের নিয়মিত অনুসারী নন, এমন অনেকও বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাতে শামিল থাকতে চান।

গত বৃহস্পতিবার বাদ আসর পাকিস্তানের ভাই হারুন কুরেশীর আম বয়ানের মধ্য দিয়ে ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। এর আগে গত রোববার আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হয় ইজতেমার প্রথম পর্ব।