ইনসাফ প্রতিষ্ঠার জন্য শাহাদাত বরণ করেছেন ইমাম হোসাইন (রা.)

16

১০ দিনব্যাপী ৩৭তম আন্তর্জাতিক শাহাদাতে কারবালা মাহফিলের নবম দিনে গতকাল বক্তারা বলেছেন চট্টগ্রাম জমিয়তুল ফালাহ জাতীয় মসজিদে , মহরম মাসে আন্তর্জাতিক শাহাদাতে কারবালা মাহফিল ও হিজরি নববর্ষ পালনের কারণে চট্টগ্রামের সাংস্কৃতিক ঔজ্জ্বল্যই দিন দিন বিকশিত হচ্ছে। বক্তারা বলেন, শাহাদাতে কারবালা মাহফিলের মাধ্যমে ইসলাম তথা সুন্নিয়তের সংস্কৃতিকে দৃঢ় ভিত্তি দেয়ার বাস্তব রূপকার হলেন জমিয়তুল ফালাহর প্রথম খতিব খতিবে বাঙাল অধ্যক্ষ আল্লামা জালালুদ্দিন আলকাদেরী (রহ)।
গতকালের মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন চউকের সাবেক চেয়ারম্যান রাজনীতিবিদ আব্দুচ ছালাম। প্রধান অতিথি ছিলেন রাজনীতিবিদ মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী। বিদেশি আলোচক ছিলেন, গাউসুল আজম হযরত সৈয়দ আবদুল কাদের জিলানী (রহ.) এর বংশধর শাহসূফি সৈয়দ আফিফ উদ্দিন আল মনসুর আল জিলানি আল বাগদাদি।
তিনি বলেন, দুনিয়াজুড়ে আজ আহলে বায়তে রাসুলের (দ) চর্চা হচ্ছে। ইমাম হোসাইন (রা) কারবালা প্রান্তরে হক ও ইনসাফ প্রতিষ্ঠার জন্য লড়াই করে শাহাদাতের সুধা পান করেছেন। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন শাহাদাতে কারবালা মাহফিল পরিচালনা পর্ষদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও চেয়ারম্যান এবং পিএইচপি ফ্যামিলির চেয়ারম্যান সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। প্রধান অতিথি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, জমিয়তুল ফালাহর কারবালা মাহফিল চট্টগ্রামের সাংস্কৃতিক উজ্জ্বলতার প্রতীক। সভাপতির বক্তব্যে আবদুচ ছালাম বলেন, জমিয়তুল ফালাহর কারবালা মাহফিল আমাদের ঈমানি চেতনাকেই শাণিত করছে। এ মাহফিল চট্টগ্রামের সংস্কৃতিকে উজ্জ্বলতর করেছে। মাহফিলে বিশেষ অতিথি ছিলেন, সাবেক চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। আলোচক ছিলেন জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া মাদ্রাসার প্রভাষক আল্লামা মীর মুহাম্মদ আলাউদ্দিন আলকাদেরী। হযরত আমিরে মুয়াবিয়া (রা) ও কুস্তুনতুনিয়া যুদ্ধ বিষয়ে আলোচনা করেন আল্লামা আবুল হাসান মুহাম্মদ ওমাইর রিজভি। দেশে দেশে আহলে বায়তে রাসূলের চর্চা প্রসঙ্গ: বাংলাদেশ বিষয়ে আলোচনা করেন মিডিয়া ব্যক্তিত্ব মাওলানা সৈয়দ হাসান আজহারি। কোরআন মজিদ থেকে তেলাওয়াত করেন কারী শায়খ আহমদ নায়না (মিশর) ও আহমদ বিন ইউসুফ আল আজহারী। মাহফিলে অতিথি ছিলেন অধ্যক্ষ আল্লামা আবুল ফরাহ মুহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন আলকাদেরী, শাহজাদা শাহসুফি সৈয়দ মিফতাহুন নূর মাইজভাণ্ডারী, শিল্পপতি হাজী জানে আলম, ওসি আব্দুল করিম, ব্যবসায়ী-সমাজসেবী মুহাম্মদ আলমগীর পারভেজ। উপস্থিত ছিলেন, মুহাম্মদ আলী হোসেন সোহাগ, মুহাম্মদ খোরশেদুর রহমান, মুহাম্মদ আনোয়ারুল হক, মুহাম্মদ সিরাজুল মোস্তফা, অধ্যাপক কামাল উদ্দিন আহমদ, মুহাম্মদ আব্দুল হাই মাসুম, মোহাম্মদ দিলশাদ আহমদ, জাফর আহম্মদ সাওদাগর, মুহাম্মদ সাইফুদ্দিন, মুহাম্মদ মনসুর সিকদার, এস এম সফি, মুহাম্মদ মাহবুবুল আলম প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।