Home / আর্ন্তজাতিক / ইসরায়েলে জাতীয় ভোট এক বছরে তৃতীয়বার

ইসরায়েলে জাতীয় ভোট এক বছরে তৃতীয়বার

পার্লামেন্টে সিদ্ধান্ত হয়েছে আগামী ২ মার্চ আবার নির্বাচন। দীর্ঘ আলোচনার পরেও জোট না হওয়ায় এক বছরের মধ্যে ইসরায়েলে তৃতীয়বার ভোটে যাচ্ছে। জোট গঠন নিয়ে অচলাবস্থা না কাটায় আবার নির্বাচনের এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইসরায়েলের পার্লামেন্ট।

এর ফলে অভূতপূর্ব পরিস্থিতি দেখা দিয়েছে। এক বছরের মধ্যে তৃতীয়বার ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন ইসরায়েলের ভোটাররা।

গত নির্বাচনে কোনো একটি দল সরকার গড়ার মতো সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি। সরকার গড়ার জন্য তাই ভোট পরবর্তী জোট দরকার ছিল। দীর্ঘ আলোচনার পরও সেই জোট তৈরি সম্ভব হয়নি। দলগুলো এখন একে অপরকে দোষারোপ করছে। এর প্রতিক্রিয়া ভোটদাতাদের ওপর পড়তে পারে এবং তাদের মনে অবিশ্বাস তৈরি হতে পারে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক মহলের একাংশ।

চলতি বছরে এপ্রিল ও সেপ্টেম্বরে নির্বাচন হয়। সেখানে বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর দক্ষিণপন্থী লিকুদ ৩১ ও বেনি গান্টস এর ব্লু অ্যান্ড হোয়াইট পার্টি ৩২ আসনে জেতে। এরপর নেতানিয়াহু ও গ্রান্টস সরকার গঠন করা নিয়ে আলোচনা করেন। কিন্তু তাতে কোনো ফল হয়নি। নেতানিয়াহু ভিডিও বার্তায় বলেছেন, ‘আমাদের ওপর জোর করে নির্বাচন চাপিয়ে দেওয়া হল’। তিনি সরাসরি এর জন্য গ্রান্টসকে দায়ী করেছেন।

গ্রান্টস পাল্টা বলেছেন, ‘নেতানিয়াহু দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে রীতিমতো বিপাকে। সেটাই সরকার না হওয়ার মূল কারণ। নেতানিয়াহু দুর্নীতির অভিযোগের হাত থেকে বাঁচতে চাইছিলেন। আমরা তার বিরোধিতা করছিলাম। তাই এক বছরের মধ্যে তৃতীয়বার নির্বাচন হবে।’

তার বিরুদ্ধে ওঠা ঘুষ, জালিয়াতি ও বিশ্বাসভঙ্গের অভিযোগ থেকে রেহাই পেতে আগামী ১ জানুয়ারির মধ্যে পার্লামেন্টে ভোটাভুটি চাইতে পারেন নেতানিয়াহু। সেই পরিস্থিতিতে সত্তর বছরের এই রাজনীতিককে পার্লামেন্ট রেহাই দেবে কি না, তা জানার জন্য আরও কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this:
Skip to toolbar