এক ফিলিস্তিনিকে হত্যা ইসরায়েলির তরুণের হত্যাকারীকে ধরতে গিয়ে

139

আহত এক ইসরায়েলি তরুণের মৃত্যু হয়েছে ফিলিস্তিনি বন্দুকধারীর গুলিতে । গত সপ্তাহে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর বুধবার ওই তরুণের মৃত্যু হয়। এদিকে একইদিনে পশ্চিমতীরে এক সহিংসতায় ইসরায়েলি সেনাদের গুলিতে ১৬ বছর বয়সী এক ফিলিস্তিনি তরুণের মৃত্যু হয়েছে। ইসরায়েলি সেনারা জানিয়েছে, ফিলিস্তিনি আন্দোলনকারীরা কক্টেল হামলা চালালে তারা গুলি করতে বাধ্য হয়। ফিলিস্তিনি গ্রাম বেইতার কাছে এই সহিংসতার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার বিস্তর তদন্তের ঘোষণা দিয়েছে ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর। ওই তরুণের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে বিবৃতি দিয়েছে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ। এসময় তারা আরো একজনের গুলিবিদ্ধ হওয়ার কথা জানিয়েছে।

গত রোববার ইসরায়েলিদের টার্গেট করে গুলি ছোঁড়ে এক ফিলিস্তিনি বন্দুকধারী।এতে দুইজন গুরুতর আহত ও একজন সামান্য আহত হন। এই ঘটনার পরই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারে অভিযান চালায় ইসরায়েলি সেনারা। এই অভিযান চলাকালীনই সেখানে সহিংস পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। এসময় সেখানে গুলি ছোঁড়ে ইসরায়েলি সেনারা। এতেই এক ফিলিস্তিনি তরুণের মৃত্যু হয়।

গত রোববারের হামলায় গুরুতর আহত দুই ইসরায়েলির মধ্যে একজন বুধবার রাতে মারা যান। টুইটারে ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী বেনি গান্টজ এ খবর জানান। এরইমধ্যে এক অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারে সক্ষম হয়েছে ইসরায়েল। অভিযুক্ত ব্যক্তি কোনো সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর সঙ্গে যুক্ত কিনা তা তাৎক্ষনিকভাবে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
উল্লেখ্য, ১৯৬৭ সালে আরব রাষ্ট্রগুলো ইসরায়েলে আক্রমণ করলে আরব-ইসরায়েল যুদ্ধের সূচনা হয়। ওই যুদ্ধে আরব রাষ্ট্রগুলোকে হারিয়ে পশ্চিম তীর ও পূর্ব জেরুজালেম দখল করে নেয় ইসরায়েল। এরপর থেকে এই অঞ্চলগুলোতে বসতি স্থাপন করে চলেছে দেশটি। আন্তর্জাতিক আইনে ইসরায়েলের এই কার্যক্রম ‘দখলদারিত্ব’ বলে বিবেচিত হয়।