Home / ঢাকা / এলইডি লাইট উপহার নববর্ষে নগরবাসীকে : আতিক

এলইডি লাইট উপহার নববর্ষে নগরবাসীকে : আতিক

ডিএনসিসি এলাকায় এলইডি লাইট স্থাপন নগরবাসীর জন্য ডিএনসিসির পক্ষ থেকে নববর্ষের উপহার ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেছেন । শুক্রবার আগারগাঁওস্থ বাংলাদেশ স্থপতি ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন এলাকায় এলইডি সড়ক বাতি সরবরাহ ও স্থাপন প্রকল্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।
আতিকুল ইসলাম বলেন, প্রকল্পের শুরুতে ৪২ হাজার এলইডি লাইট স্থাপনের কথা থাকলেও সমপরিমান অর্থ ব্যয়ে আমরা ৪৬ হাজার ৪১০টি লাইট স্থাপন করবো। কোনো প্রকল্পে এটি একটি নজিরবিহীন ঘটনা। প্রতিটি লাইটের আয়ুষ্কাল ২২ বছর। প্রতিটি লাইট ইউরোপ থেকে আনা হয়েছে। এই লাইটগুলো চোখের জন্য সম্পূর্ণ নিরাপদ। যা বুয়েট থেকে পরীক্ষা করে তার নিশ্চয়তা দেয়া হয়েছে।

এই লাইটগুলো পরিবেশবান্ধব।

ওয়াসা থেকে সিটি করপোরেশনের কাছে খাল হস্তান্তর নিয়ে মেয়র বলেন, খালের উন্নয়নে সকল কাউন্সিলরসহ একসঙ্গে কাজ করবো। যারা অবৈধভাবে খালের জায়গা দখল করে আছে তাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনারা দ্রুত দখল ছেড়ে চলে যান, দখল করে রাখতে পারবেন না। সিএস দাগ দেখে খালের সীমানা নির্ধারণ করা হবে।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেন, অন্ধকার থেকে আলোর দিকে যাত্রার যে উদ্যোগ ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নিয়েছে তা আজকে আরম্ভ হলো। ঢাকা শহরে অনেক সমস্যা ছিল, অনেক সমস্যার সমাধান হয়েছে। আগামীতে ঢাকা শহরকে একটি দৃষ্টিনন্দন ও বসবাস উপযোগী শহরে রূপান্তরিত করার জন্য স্ব-স্ব অবস্থান থেকে কাজ করবো। বাংলাদেশের উন্নতির যে স্বপ্ন দেখেছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, সে দায়িত্ব মাননীয় প্রধানমন্ত্রী পালন ও বাস্তবায়ন করে মানুষের আকাক্সক্ষা পূরণের জন্য অঙ্গীকারাবদ্ধ। আমরা স্ব-স্ব অবস্থান থেকে কাজ করলে শুধু ঢাকা নয়, পুরো বাংলাদেশকে উন্নত দেশে রূপান্তরিত করতে পারবো। অনুষ্ঠান শেষে অতিথিরা আগারগাঁওস্থ নির্বাচন কমিশনের সামনের সড়কে অ্যাপ্সের মাধ্যমে এলইডি সড়কবাতি স্থাপন প্রকল্পের উদ্বোধন করেন। স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, ডিএনসিসি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সেলিম রেজা, প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আমিরুল ইসলাম, এলইডি সড়কবাতি সরবরাহ-স্থাপন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক রফিকুল ইসলাম, বাংলাদেশ স্থপতি ইনস্টিটিউটের প্রেসিডেন্ট স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন, ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফরহাদ হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: