Home / খবর / কারাগারে ডিজিটাল আইনে ডিএসই’র পরিচালক মিনহাজ ও রাষ্ট্রচিন্তার সদস্য দিদারুল

কারাগারে ডিজিটাল আইনে ডিএসই’র পরিচালক মিনহাজ ও রাষ্ট্রচিন্তার সদস্য দিদারুল

রাষ্ট্রবিরোধী প্রচারণার অভিযোগ এনে বুধবার রাতে বনানী এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। ডিজিটাল আইনে এবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) পরিচালক মিনহাজ মান্নান ইমনকে (৫২) গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এই মামলায় মোট ১১ জনকে আসামি করা হয়েছে। বিএলআই সিকিউরিটিজের কর্নধার মিনহাজ মান্নান ডিএসই’র একজন পরিচালক। তিনি শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির খালাত ভাই। মিনহাজের ভাই জুলহাজ মান্নানকে ২০১৬ সালে জঙ্গিরা হত্যা করেছিল। জুলহাজ মান্নান সমকামী অধিকার বিষয়ক একটি পত্রিকা সম্পাদনার সঙ্গে জড়িত ছিলেন।

এদিকে গ্রেপ্তার হত্তয়া রাষ্ট্রচিন্তা নামে সংগঠেনর সদস্য দিদারুল  ভূঁইয়াকে রমনা থানায় সোপর্দ করেছে র্যাব।

এর আগে পরিবারের পক্ষ থেকে তাকে র্যাব পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ করা হয়।

ওদিকে মিনহাজ মান্নান ইমন ও রাষ্ট্রচিন্তার ঢাকার সমন্বয়ক দিদারুল ভুইয়ার জামিন আবেদন নামঞ্জু করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। আর তাদের সাত দিনের রিমান্ড বিষয়ক শুনানি সাধারণ ছুটির পর পুর্ণাঙ্গ মামলার সিডিসহ অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন আদালত।

এর আগে গতকাল বুধবার ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এ সময় তাদের বিরুদ্ধে রমনা থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওই থানার উপপরিদর্শক জামশেদুল ইসলাম।

এইক সঙ্গে তাদের আইনজীবীরা জামিনের আবেদন করেন। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম রাজেশ চৌধুরীর জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এছাড়া তাদের সাতদিনের রিমান্ড শুনানি সাধারণ ছুটির পর পুর্ণাঙ্গ মামলার সিডিসহ অনুষ্ঠিত হবে বলে জানান।

এ বিষয়ে রমনা থানার ত্তসি মনিরুল ইসলাম মানবজমিনকে জানান, ঢাকার বনানী থেকে মিনহাজকে গ্রেপ্তার করে র্যাব। পরে তাকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। মঙ্গলবার রাতে এই মামলায় কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোর ও ব্যবসায়ী মুশতাক আহমেদকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মামলার অন্য আসামীদের মধ্যে জার্মানিতে থাকা ব্লগার আসিফ মহিউদ্দিন, সুইডেনে থাকা সাংবাদিক তাসনিম খলিল ও সাংবাদিক শাহেদ আলমও রয়েছেন।

এদিকে গ্রেপ্তার হত্তয়া রাষ্ট্রচিন্তা নামে সংগঠেনর সদস্য দিদারুল ভূঁইয়াকে রমনা থানায় সোপর্দ করেছে র্যাব। র্যাব-৩ এর সহকারী পুলিশ সুপার (অপস) আবু জাফর জানান, রমনা থানায় দায়ের করা একটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় তাকে গ্রেপ্তার ও জিজ্ঞাসাবাদের পর রমনা থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

এর আগে পরিবারের পক্ষ থেকে তাকে র্যাব পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ করা হয়।

ওদিকে মিনহাজ মান্নান ইমন ও রাষ্ট্রচিন্তার ঢাকার সমন্বয়ক দিদারুল ভুইয়ার জামিন আবেদন নামঞ্জু করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। আর তাদের সাত দিনের রিমান্ড বিষয়ক শুনানি সাধারণ ছুটির পর পুর্ণাঙ্গ মামলার সিডিসহ অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন আদালত।

এর আগে গতকাল বুধবার ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এ সময় তাদের বিরুদ্ধে রমনা থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওই থানার উপপরিদর্শক জামশেদুল ইসলাম।

এইক সঙ্গে তাদের আইনজীবীরা জামিনের আবেদন করেন। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম রাজেশ চৌধুরীর জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এছাড়া তাদের সাতদিনের রিমান্ড শুনানি সাধারণ ছুটির পর পুর্ণাঙ্গ মামলার সিডিসহ অনুষ্ঠিত হবে বলে জানান।

এ বিষয়ে রমনা থানার ত্তসি মনিরুল ইসলাম মানবজমিনকে জানান, ঢাকার বনানী থেকে মিনহাজকে গ্রেপ্তার করে র্যাব। পরে তাকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। মঙ্গলবার রাতে এই মামলায় কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোর ও ব্যবসায়ী মুশতাক আহমেদকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মামলার অন্য আসামীদের মধ্যে জার্মানিতে থাকা ব্লগার আসিফ মহিউদ্দিন, সুইডেনে থাকা সাংবাদিক তাসনিম খলিল ও সাংবাদিক শাহেদ আলমও রয়েছেন।

এদিকে গ্রেপ্তার হত্তয়া রাষ্ট্রচিন্তা নামে সংগঠেনর সদস্য দিদারুল ভূঁইয়াকে রমনা থানায় সোপর্দ করেছে র্যাব। র্যাব-৩ এর সহকারী পুলিশ সুপার (অপস) আবু জাফর জানান, রমনা থানায় দায়ের করা একটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় তাকে গ্রেপ্তার ও জিজ্ঞাসাবাদের পর রমনা থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: