কিম প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে যুদ্ধের জন্য

16

তার দেশ যে কোনো পারমাণবিক আগ্রাসন মোকাবিলার প্রস্তুত উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন বলেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের মতো যে কোনো দেশের সামরিক আগ্রাসন মোকাবিলায় তার দেশ তৈরি হয়েছে। এ ছাড়া প্রতিবেশী দক্ষিণ কোরিয়াকে নির্মূল করার হুমকিও দেন তিনি। কোরীয় যুদ্ধের বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠানে কিম এসব কথা বলেন। খবর বিবিসি।

খবরে বলা হয়, ধারণা করা হচ্ছে উত্তর কোরিয়া আবারও পারমাণবিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছে। এর আগে গত মাসে যুক্তরাষ্ট্র সতর্ক করেছিল- যে কোনো সময় পারমাণবিক পরীক্ষা চালাবে।

১৯৫০-৫৩ দুই কোরিয়ার মধ্যে যুদ্ধ সমঝোতার মধ্য দিয়ে সমাপ্ত হয়। তবে উত্তর কোরিয়া সেই সমঝোতাকে যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে বিজয় হিসেবে দাবি করে থাকে। দিনটিকে তারা ‘বিজয় দিবসের’ নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে পালন করে থাকে। গতকাল বৃহস্পতিবার ছিল উত্তর কোরিয়া সেই দিন। দিনটি উপলক্ষে তিন সপ্তাহের মধ্যে প্রথমবারের মতো জনসম্মুখে আসেন কিম। কিম তার বক্তৃতায় বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের পারমাণবিক হামলা রোধ করতে উত্তর কোরিয়াকে তার ঐতিহাসিক সক্ষমতা অর্জন করতে হবে। তিনি আরও বলেন, যুক্তরাষ্ট্র সব সময় সামরিক মহড়া দিয়ে উত্তর কোরিয়াকে উসকানি দিয়ে থাকে। মার্কিন সাম্রাজ্যবাদ দক্ষিণ কোরিয়াকে উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। প্রতিবেশী দেশ সম্পর্কে কিম বলেন, দক্ষিণ কোরিয়ার সরকার ও দেশটির সামরিক গুন্ডারা আমাদের সামরিক মোকাবিলার করার কৌশল রপ্ত করছে। এ ধরনের যে কোনো বিপজ্জনক প্রচেষ্টা প্রতিহত করে অবিলম্বে আমাদের শক্তিশালী বাহিনীর মাধ্যমে শাস্তি দেওয়া হবে এবং (প্রেসিডেন্ট) ইউন সুক ইওলের সরকার ও তার সেনাবাহিনীকে নির্মূল করা হবে।’

প্রসঙ্গত, চলতি বছর কিম রেকর্ডসংখ্যক ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছেন এবং ২০১৭ সালের পর থেকে দেশটি হয়তো প্রথমবারের মতো পারমাণবিক পরীক্ষ চালাতে পারে বলে ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে। চলতি বছর গত কয়েক মাসে কয়েক দফায় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছে। জুন মাসের প্রথম সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্র-দ. কোরিয়ার সামরিক মহড়ার জবাবে একসঙ্গে ৮টি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছিল দেশটি। এর আগে গত ২৫ মে আরেক দফায় ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালায় উত্তর কোরিয়া। সে সময় বাইডেন পূর্ব এশিয়া ত্যাগ করার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই তিনটি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছিল পিয়ংইয়ং।