Home / চাকুরী / চাকরিতে যেসব দক্ষতা বেশি কাজে লাগবে মহামারির পর

চাকরিতে যেসব দক্ষতা বেশি কাজে লাগবে মহামারির পর

করোনাভাইরাস মহামারি বিশ্বজুড়ে চলছে । বিশেষজ্ঞরা অভূতপূর্ব অর্থনৈতিক পতনের পূর্ভাবাস দিচ্ছেন, যার কারণে লক্ষ লক্ষ মানুষ চাকরি হারাবে এবং বেতন কমে যাবে। বিভিন্ন দেশের সরকার করোনার ক্ষতি পোষাতে আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করেছে।

প্রতিটি ক্ষেত্রকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিয়েছে করোনা মহামারি। চাকরির ক্ষেত্রে টিকে থাকতে মহামারি পরবর্তী সময়ে বেশ কয়েকটি দক্ষতা অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারে। যেগুলো ক্যারিয়ার টিকিয়ে রাখতে সহায়তা করবে। চলুন তেমন কয়েকটি দক্ষতার বিষয়ে জেনে নিই।

নেতৃত্বের দক্ষতা

কোনো জাহাজ যখন সমস্যায় পড়ে থাকে তখন কেবলমাত্র একজন সক্ষম ক্যাপ্টেন সেটিকে সাগরের মধ্য দিয়ে চালিয়ে নিয়ে যেতে পারেন। ঠিক তেমনই এই সংকটের সময়ে দৃড় নেতৃত্বের গুণাবলীর ব্যক্তিরা একটি দলকে সাফল্যের দিকে নিয়ে যেতে পারেন। সুতরাং শক্ত নেতৃত্বের দক্ষতা সম্পন্ন লোকেরা যারা দলকে পরিচালনা করতে পারে, সতীর্থের থেকে সর্বোচ্চ কাজটি বের করে আনতে পারে এবং তাদেরকে উৎসাহ যোগায় তাদের কদর বেড়ে যাবে। তারা তাদের ক্যারিয়ার সংকটের সময়েও উপরের দিকে তুলতে পারবেন।

আবেগময় বুদ্ধিমত্তা

আবেগময় বুদ্ধিমত্তা হলো সেই গুণ যা একজন ব্যক্তিকে অন্যের আবেগকে আরও ভালভাবে বুঝতে এবং তার আবেগকে ভালভাবে প্রকাশ করতে বা নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করে। সব সেরা নেতাদের এই গুণ রয়েছে। তারা সহানুভূতিশীল এবং কোনো কর্মীর মানসিক স্বাস্থ্য সহজেই অনুমান করতে পারে। আমরা আজ যে সময়টিতে আছি, আবেগময় বুদ্ধি সম্পন্ন কর্মীদের আরও ভালো সম্ভাবনা রয়েছে।

প্রযুক্তি দক্ষতা

করোনাভাইরাস মহামারি পরবর্তী সময়ে কর্মীদের সবচেয়ে বেশি সহায়তা করতে পারে এমন একটি দক্ষতা হলো প্রযুক্তিবিষয়ক জ্ঞান। মহামারিটি বিশাল ডিজিটাল পরিবর্তন নিয়ে এসেছে। কর্মীরা বাড়িতে বসে কাজ করছেন, অনলাইনে সভা করছেন। পেশাগত সংযোগ স্থাপনের ক্ষেত্রে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অপরিহার্য হয়ে উঠেছে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, ইন্টারনেট নিয়ন্ত্রিত অপারেশন, রোবোটিকস ইত্যাদি ভবিষ্যতে আরও বিস্তৃত হবে। অতএব গুরুত্বপূর্ণ হলো এই সময়ে প্রযুক্তিগত দক্ষতা যতটা সম্ভব অর্জন করা।

পরিবর্তনের সঙ্গে মানিয়ে নিন

করোনা মহামারি আমাদের জীবনে অনেক পরিবর্তন এনেছে এবং মহামারি শেষ হওয়ার পরও আমাদের জীবনে অনেক পরিবর্তন আসবে। অফিস কীভাবে কাজ করবে, কীভাবে আমরা কাজ করব ইত্যাদি পরিবর্তিত হবে। সেসব পরিবর্তনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারায় সবচেয়ে বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: