চীনা ঠিকাদার দায়ী গার্ডার দুর্ঘটনায়

13

তদন্ত কমিটি গার্ডার পড়ে পাঁচজন নিহতের ঘটনায় চীনা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের দায় পেয়েছে। একইসঙ্গে ঠিকাদারকে শাস্তি দেওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সড়ক পরিবহন সচিবের কাছে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে কমিটি।

প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা না হলেও সংশ্লিষ্ট সূত্র গণমাধ্যমকে জানিয়েছে, গত ১৫ আগস্ট রাজধানীর উত্তরার জসীম উদ্দীন মোড়ের দুর্ঘটনার জন্য ঠিকাদারের অবহেলা দায়ী।

তবে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি সদস্য সচিব সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী সবুজ উদ্দিন খান।

কমিটি সূত্র জানিয়েছে, তদন্ত প্রতিবেদনে কারাবন্দি ক্রেন অপারেটর আল আমিন হোসেন হৃদয়সহ প্রায় ২০ জনের জবানবন্দি রয়েছে। কারাফটকে হৃদয়ের জবানবন্দি নেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে নেওয়া হয়েছে ১০ জন চীনা নাগরিকের জবানবন্দি।

গার্ডার দুর্ঘটনায় ১০ বাংলাদেশি নাগরিক গ্রেপ্তার হলেও চীনা কারও বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। গার্ডার পড়ে পাঁচজন নিহত হয়েছেন যেখানে, বিআরটির সেই অংশের ঠিকাদার চায়না গেঝুবা গ্রুপ কোম্পানি লিমিটেড। বিআরটির উড়াল অংশের ঠিকাদার চীনের আরেক প্রতিষ্ঠান জিয়াংশু প্রভিন্সিয়াল ট্রান্সপোর্টেশন ইঞ্জিনিয়ারিং গ্রুপ কোম্পানি লিমিটেড।

গত ১৫ আগস্ট উত্তরা জসীমউদ্দীন এলাকায় আড়ংয়ের সামনে ক্রেন দিয়ে একটি গার্ডার ওপরে ওঠানো হচ্ছিল। এ সময় ক্রেন উল্টে সেটি প্রাইভেটকারের ওপর পড়ে। গার্ডার পড়ে প্রাইভেটকারটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এতে প্রাইভেটকারের ভেতরে থাকা সাতজনের মধ্যে পাঁচজন নিহত হয়। নিহতরা হলেন রুবেল (৬০), ফাহিমা (৪০), ঝরনা (২৮), জান্নাত (৬) ও জাকারিয়া (২)। বেঁচে যাওয়া দুইজন হলেন নবদম্পতি হৃদয় ও রিয়া মনি।