চীনের বিষয়ে ট্রাম্পের শক্ত হওয়া ঠিক ছিল,বাইডেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন

5

প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের চার বছরের পররাষ্ট্রনীতিতে বড় ধরনের পরিবর্তনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের মনোনীত পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন সদ্য বিদায় নেয়া । তবে তিনি জোর দিয়ে বলেন, একটি বিষয়ে অগ্রাধিকার অপরিবর্তিত থাকবে। সেটি হলো চীন।

নিউইয়র্ক পোস্ট, সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট, নিক্কি এশিয়া রিভিউসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে এ নিয়ে গুরুত্বসহকারে প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সিনেট ফরেন রিলেশনস কমিটির সামনে নিজের মনোনয়ন নিশ্চিতের শুনানিতে ব্লিংকেন বলেন, আমিও বিশ্বাস করি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প চীনের বিষয়ে শক্ত অবস্থান নিয়ে ঠিক কাজটিই করেছিলেন। যদিও তার নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের সাথে আমি একেবারেই সম্মত নই, কিন্তু মূলনীতির জায়গায় তিনি ঠিক ছিলেন। আমি মনে করি, তা আমাদের পররাষ্ট্রনীতির জন্য সহায়ক ছিল।

উল্লেখ্য, ব্লিংকেন আগেও বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রনীতির জন্য শতাব্দীর সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হলো চীন। মঙ্গলবার তিনি আভাস দেন, বাইডেন প্রশাসন একটি ঐক্যবদ্ধ জোট গড়ে তুলতে এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চল এবং অন্যান্য জায়গায় বন্ধুরাষ্ট্রদের সাথে সম্পর্ক পুনঃস্থাপন করবে।

লক্ষণীয় বিষয়, এদিন ট্রাম্পের প্রশংসা করলেও এর আগে দেয়া বিভিন্ন সাক্ষাৎকারে ব্লিংকেন বলেছিলেন, ট্রাম্পের দুর্বল নীতির কারণেই চীন তার কৌশলগত অনেক লক্ষ্যপূরণে এগিয়ে যেতে পেরেছে। যেমনঃ যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন জোটসমূহকে দুর্বল করে দেয়া, বিশ্বজুড়ে যুক্তরাষ্ট্রের ‘ধরনের’ গণতন্ত্রের সৌন্দর্য ফিকে করে দেয়া।