ছাত্রলীগের সাধারণ গ্রেপ্তারের দুই মাস পর হাইকোর্ট থেকে জামিন পেলেন রণি

4

sl-300x160

ঢাকা ১৩ জুন : সোমবার বিচারপতি মো. হাবিবুল গণি ও মো. আকরাম হোসেন চৌধুরীর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ রণির অর্ন্তবর্তীকালীন জামিন মঞ্জুর করেন।  চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রভাব বিস্তারের অভিযোগে দণ্ডিত চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নূরুল আজিম রণি জামিন পেয়েছেন।

চট্টগ্রামের হাটহাজারী থেকে গ্রেপ্তারের দুই মাস পর হাইকোর্ট থেকে জামিন পেলেন রণি। হাইকোর্টে রণির জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট এস এম রেজাউল করিম।

নির্বাচনে প্রভাব বিস্তারের অভিযোগে দেয়া কারাদণ্ডের বিরুদ্ধে আপিল করে রণি আগেই জামিন পেয়েছেন। অস্ত্র মামলায় সর্বশেষ জামিন পাওয়ায় রণির মুক্তিতে আর কোনো বাধা নেই বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবী।

গত ৭ মে বেলা সোয়া ১২টার দিকে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন চলাকালে হাটহাজারী উপজেলার মির্জাপুর থেকে নির্বাচনে দায়িত্বরত জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হারুনুর রশিদের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে রণিসহ নয়জনকে আটক করে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।

এ সময় রনির কাছে একটি নাইন এমএম পিস্তল, ১৫ রাউন্ড গুলি ও ২৬ হাজার টাকা পাওয়া যায় বলে গণমাধ্যমে তথ্য দেয় বিজিবি। এরপর তাদের হাটহাজারী থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়।

ওই দিন সন্ধ্যায় ম্যাজিস্ট্রেট হারুনুর রশীদের নেতৃত্বে পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত রণিকে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন বিধিমালা ২০১৬ এর দুটি ধারায় এক বছর করে মোট দুই বছর কারাদণ্ড দেন।  পরদিন সকালে রণিকে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়। এছাড়া রণির বিরুদ্ধে হাটহাজারী থানায় অস্ত্র আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়।