জলদস্যু আটক পেকুয়ায়

21

চায়না কোম্পানীর কাজে ব্যবহৃত একটি সামুদ্রিক জাহাজে ডাকাতির ঘটনায় আকতার আলম (৩২) নামে এক জলদস্যুকে আটক করেছে পেকুয়া থানা পুলিশ পেকুয়ায় । রোববার সন্ধ্যায় উপজেলার মগনামা ইউনিয়নের কালারপাড়া বেড়িবাঁধ এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয় বলে থানা সূত্র জানায়। আটক জলদস্যু আকতার মগনামা ইউনিয়নের কালারপাড়া এলাকার আহমদ হোসেনের ছেলে। জানা যায়, গত ১ আগস্ট গভীর রাতে উজানটিয়া ইউনিয়নের ঘোষালপাড়া কাজিরঘোনা কুতুবদিয়া চ্যানেলের মোহনায় নোঙর করে রাখা চায়না কোম্পানীর কাজে ব্যবহৃত একটি টাগবোটে হানা দেয় আকতার আলমের নেতৃত্বে একদল জলদস্যু।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, ডাকাতদল টাগবোটে থাকা লোকজনকে হাত পা বেঁধে মারধর করে এবং লুটপাট চালায়। এ সময় জলদস্যুদের মারধরে আহত হন চীনা নাগরিক লিউ ইয়াং (৩৫), সান জিয়া ইয়ং (৫২), জাং জিয়াং ওয়াই (৩৪) ও বাংলাদেশী নাগরিক আমিরুল (৩২)। এক পর্যায়ে ডাকাতদলের সদস্যরা নগদ টাকা, একটি আইপ্যাড, তিনটি মুঠোফোনসহ মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।
পরে ডাকাতির ঘটনায় চায়না হারবার ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানীর ব্যবস্থাপক সাকিব উদ্দিন চৌধুরী বাদী হয়ে শনিবার রাতে পেকুয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। চায়না হারবার ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানী পেকুয়ার মগনামায় চলমান বানৌজা শেখ হাসিনা সাব মেরিন ঘাঁটিতে কাজ করছে বলে জানা গেছে।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পেকুয়া থানার এসআই মোজাম্মেল হোসেন বলেন, থানায় মামলা রেকর্ড হওয়ার পরপরই ঘটনার তদন্তে নামে পুলিশ। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে জলদস্যু আকতার আলমকে আটক করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে ডাকাতির ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে।