Home / ফিচার / টিকটিকি না.গঞ্জের সেই মানবিক কাউন্সিলর খোরশেদের পেছনে ?

টিকটিকি না.গঞ্জের সেই মানবিক কাউন্সিলর খোরশেদের পেছনে ?

না.গঞ্জের খোকন সাহার পরিবারে স্ত্রী, ১৩ ও ১১ বছরের ২ মেয়ে আছে, পরিবার ও স্বজনদের কেউ শ্মশানে যাননি, মৃতদেহে মখাগ্নি দেবার কেউ ছিল না, পরিবারের অনুরোধে খোরশেদ মুখে আগুন ও সৎকার করেন!

এমন সুন্দর, এত গভীরে ছুঁয়ে যাওয়া মানবিক গল্প জন্মের পর আমি শুনিনি! করোনা অনেককে গভীর সংকটে ঠেলে দিলেও খোরশেদের মতো তিন বারের নির্বাচিত কাউন্সিলরের হাতে তুলে দিয়েছে জনসেবার, মানুষের মনের মনিকোঠায়, পাকাপোক্ত করে ঢুকে যাবার অনন্য সুযোগ!

তাঁর এ গল্প দেশের সীমা অতিক্রম করে কাল সমগ্র বিশ্বে ঘুরে বেড়িয়েছে! শেয়ার হয়েছে বিস্তর, ভাইরাল হয়েছে! প্রতিবেশীর নিষ্ঠুরতায় মানুষ বিমর্ষ যতোটা হয়েছে, ততোটাই গর্ব করেছে খোরশেদকে নিয়ে! রাজনীতির মাঠে এমন দরদী, ভালবাসার এমন সুন্দর মানুষের ভীষণ খরা! খোরশেদের মতো মানুষ বেঁচে থাকবার, যুদ্ধ করবার রসদ যোগায়! খোরশেদরা মুখে কথার খই না ফুটিয়ে, করোনার ভয়ে ঘরে ঢুকে না গিয়ে, ঝুঁকি নিয়ে নীরবে কাজ করে যান!

সেই কাজের বিবরণ পড়ে গতকাল কেউ কেঁদেছেন, কেউ ঈশ্বরের কাছে দুহাত তুলে প্রার্থনা করেছেন!

এমন মানুষের ঈর্ষণীয় কাজে হিংসায় জ্বল-পুডে ছাই হবে বীর বাঙালী, খোরশেদের বেলায়ও সে চেষ্টা শুরু হয়ে গেছে। ফেসবুক হ্যাক করার চেষ্টা হয়েছে, থামিয়ে দিতে সক্রিয় কেউ কেউ!

রাত থেকেই মানুষটির সঙ্গে কথা বলার ইচ্ছে। সকালে ফোন দিতেই তিনি এমন আন্তরিক, যেন বহু দিনের আলাপ আমাদের! তাঁকে বলছিলাম, আপনার পেছনে কিন্তু লোক লেগে যাবে! চোখ-কান খোলা রাখবেন! তিনি হেসে বললেন, ‘ওসব জানি! অলরেডি টিকটিকি লেগে গেছে! আফসোস লাগে, চায়ের দোকানে বসে আড্ডা দিতে পারে, কিন্তু প্রতিবেশী মরে পডে থাকলেও মানুষ যায় না, কী বলব বলেন’?

মানুষের স্বার্থপরতা নিয়ে নতুন করে কী বলব, এই ভোগের সমাজ, এই নিষ্ঠুর সমাজ তো আমরাই বানিয়েছি! হঠাৎ করে কী করে তা বদলাবে?

হঠাৎ করে এ সমাজ হয়তো বদলানো যাবে না, কিন্তু আপনি যে প্রচণ্ড এক ঝাঁকুনি মেরে বদলাতে শুরু করেছেন, তা বলে দিতে পারি!

আপনার মতো প্রচুর মানুষ দরকার মাকসুদ আলম খোরশেদ!

লেখকঃ সিনিয়র সাংবাদিক। প্রতিষ্ঠাতা, স্বপ্নযাত্রা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: