নজিরবিহীন চাদাঁবাজি ও নির্যাতন চলছে পরিবহন সেক্টরে

14

পরিবহন-সংবাদ-সম্মেলনঅনিবন্ধিত সিএনজি আটোরিক্সা ধর পাকড় বন্ধসহ ছয় দফা দাবিতে বৃহত্তর চট্টগ্রামের পাচ জেলায় আগামী ৯ মে সোমবার দিনব্যাপি পরিবহণ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশান চট্টগ্রাম আঞ্চলিক শাখা।
সংগঠনটি অভিযোগ করেছে পরিবহন সেক্টওে পুলিশের চাদাঁবাজি ও নির্যাতন অতীতের সকল রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে।

শুক্রবার সকালে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনটির চট্টগ্রাম আঞ্চলিক শাখার সভাপতি মোহাম্মদ মুসা জানিয়েছেন, হাইকোর্ট সম্প্রতি অনিবন্ধিত সিএনজি আটোরিক্সা চলাচলের অনুমতি দিলেও পুলিশ আদালতের এই নির্দেশনা মানছেনা।

গত কয়েকদিনে প্রায় দুইহাজার অনিবন্ধিত অটোরিক্সা আটক করা হয়েছে দাবি করে মুসা বলেন, ধর্মঘট চলাকালে চট্টগ্রামের পাচ জেলায় দূর পাল্লার যানবাহনসহ কোন ধরনের গণপরিবহন চলাচল করবেনা, উল্লেখ করেন তিনি।

মোহাম্মদ মুছা বলেন, “চারহাজার অনিবন্ধিত অটোরিক্সার উপর জীবন ধারন করছে কমপক্ষে ১৫/ৃ১৬ হাজার মানুষ, পুলিশ এসব অটোরিক্সা চলাচল করতে না দেওয়াতে এর উপর নির্ভরশীল মানুষরা মানবেতর জীবন যাপন করছে।”

“পুলিশের নির্যাতন, দুর্নীতি ও চাদাবাজি অতীতের সকল রেকর্ড অতিক্রম করেছে, এই অবস্থায় গাড়ী চালানো অসম্ভব হয়ে পড়েছে, ধর্মঘটে যাওয়া ছাড়া আমাদেও সামনে আর কোন পথ খোলা নেই, উল্লেখ করেন তিনি।

মোহাম্মদ মুছা বলেন, “ক্রমবর্ধমান চাহিদার কথা বিবেচনা করে যোগাযোগ মন্ত্রনালয় চট্টগ্রাম মহানগরীর জন্য চার হাজার নতুন অটোরিক্সা নিবন্ধন দেওয়া সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে, যার প্রেক্ষিতে এইসব অটোরিক্সা ক্রয় করা হয়, কিন্তু নানা সীমাবদ্ধতা ও জটিলতার কারণে সড়ক পরিবহণ কর্তৃপক্ষ চারহাজার অটোরিক্সার নিবন্ধন দিচ্ছেনা।”

বিষয়টি নিয়ে হাইকোর্টে রিট পিটিশন দাখিল করলে গত ২৫ এপ্রিল অনিবন্ধিত অটোরিক্সা চলাচলে বাধা না দেওয়ার জন্য পুলিশকে নির্দেশ দেয়, কিন্তু পুলিশ এই নির্দেশ অমান্য করে প্রতিদিনই শত শত অটোরিক্সা আটক করছে বলে উল্লেখ করেন সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের এই নেতা।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন আঞ্চলিক কমিটির সাধারন সম্পাদক অলি আহমদ, শ্রমিক নেতা মৃনাল চৌধুরী, হাজী রুহুল আমীন রবিউল আলম।

চট্টগ্রাম মহানগরীতে প্রায় ৫ হাজার সিএনজি অটোরিক্সা অনিবন্ধিত অবস্থায় চলাচল করছে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।