নিহত ৩ নারায়ণগঞ্জে বাসচাপায় এসআইসহ

9

buscapa_116725

ঢাকা:নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যাত্রীবাহী একটি বাসের চাপায় পুলিশের এক এসআইসহ (উপপরিদর্শক) তিনজন নিহত হয়েছেন।বুধবার সন্ধ্যায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত পুলিশ কর্মকর্তার নাম উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. কামরুল ইসলাম। বাকি দুই জনের পরিচয় জানা যায়নি।তবে পুলিশের ধারণা তারা শ্রমিক।কাজ শেষে তাঁরা বাড়ি ফেরার জন্য যানবাহনের অপেক্ষা করছিলেন।

নিহত এসআইয়ের নাম কামরুল ইসলাম।তিনি মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায় কর্মরত ছিলেন।আজ বুধবারই ঢাকা জেলায় যোগ দেন।যোগদানের পর নিজের মালপত্র আনতে পুরোনো কর্মস্থলে যাচ্ছিলেন এসআই কামরুল।তিনি মাদারীপুর জেলার বাসিন্দা।
সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মঞ্জুর কাদের জানান, ঢাকা থেকে নোয়াখালী গামী ঢাকা এক্সপ্রেসের একটি বাস (ঢাকা মেট্রো ব-১৪৩৬১৯) কাঁচপুর সেতু থেকে নামার সময় পূর্ব ঢালে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সোনারগাঁ ফিলিং স্টেশনের সামনে একটি লেগুনাকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তিনজনের মৃত্যু ঘটে। বাসটি আটক করা হলেও চালক ও হেলপার পালিয়ে গেছে।

ওসি এস এম মঞ্জুর কাদের জানান, কামরুলের নতুন কর্মক্ষেত্র ছিল ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে। যোগদানের পর তিনি নিজের মালপত্র আনতে পুরোনো কর্মস্থলে যাওয়ার পথেই দুর্ঘটনার শিকার হন।

এদিকে একইস্থানে বিকেল পৌনে ৩টায় তেলের ট্যাংকারের চাপায় সুমা আক্তার নামের এক গৃহবধূ ও তাঁর তিন মাসের শিশু কন্যা নুসরাত নিহত হয়। নিহত মা ও মেয়ে রূপগঞ্জের দক্ষিণ রূপসী গ্রামের বাসিন্দা।

কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শরিফুল ইসলাম জানান, বুধবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের বন্দরের মদনপুরে বাবার বাড়ি থেকে স্বামীর বাড়ি রূপগঞ্জে ফিরছিলেন সুমা আক্তার ও তার শিশু কন্যা নুসরাত। রাস্তা পার হওয়ার জন্য কাঁচপুর মোড়ে আইল্যান্ডে দাঁড়িয়ে ছিলেন সুমা। এ সময় তেলের ট্যাংকারটি কাঁচপুর সেতু থেকে নামার সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে আইল্যান্ডে দাঁড়িয়ে থাকা সুমা আক্তার ও শিশু নুসরাতকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মা ও মেয়ে নিহত হয়।