পুলিশের লাঠি, টিয়ার গ্যাস, জলকামান, কাল বন্ধ বাম- যুবদের নবান্ন অভিযান কেন্দ্র করে ধর্মতলা রণক্ষেত্র

11

রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় ধর্মতলা চত্বরের ডোরিনা ক্রসিং কর্মসংস্থানসহ চারদফা দাবিতে বাম যুব সংগঠনগুলোর নবান্ন অভিযানকে কেন্দ্র করে । পুলিশের সঙ্গে বাম যুবদের সংঘর্ষে আহত হয়েছে মোট ৩২ জন। তাদের মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে ৬ জনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাদের পাঠানো হয়েছে এস এস কে এম হাসপাতালে। ২৫ জন পুলিশকর্মী আহত হন। কারও আঘাতই গুরুতর নয়। মোট ৪২ জনকে এই ঘটনায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ডোরিনা ক্রসিংয়ে বাম যুব সংগঠনের মিছিল পৌঁছালে পুলিশ লাঠি, কাঁদানে গ্যাস ও জলকামান ব্যবহার করে। পুলিশের লাঠির আঘাতে রক্তাক্ত হয় ধর্মতলা চত্বর। সি পি এমের যুব সংগঠন ডি ওয়াই এফ আই ছিল নবান্ন অভিযানের দায়িত্বে। সন্ধ্যার পর সি পি এম নেতা ও প্রাক্তন সাংসদ মোহাম্মদ সেলিম শুক্রবার বারো ঘন্টার বন্ধের ডাক দেয়। সেলিম বলেন, মমতা বন্দোপাধ্যায়ের পুলিশের বর্বর আচরণের বিরুদ্ধে এই বন্ধ। রাতেই নির্বাচনে সি পি এমের জোটসঙ্গী কংগ্রেস এই বন্ধ সমর্থন করেছে। বারোঘন্টার বন্ধ ডাকা হয়েছে যা সকাল ৬ টায় শুরু হয়ে সন্ধ্যা ৬টায় শেষ হবে। তৃণমূল কংগ্রেস বন্ধের বিরোধিতা করবে। অর্থাৎ শুক্রবার বাংলার বাতাসে বারুদের গন্ধ।।