পৃথিবীকে বাঁচাতে ব্যর্থ হবে মানুষ ধেয়ে আসা গ্রহাণু থেকে !

44

মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসা গ্রহাণুগুলোকে শনাক্ত করার সক্ষমতা যাচাইয়ে সিমুলেশন তৈরি করে। সা¤প্রতিক এমন এক সিমুলেশনে দেখা গেছে, পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসা গ্রহাণু থামাতে ব্যর্থ হবে বর্তমানে থাকা প্রযুক্তিগুলো। এটিকে হুঁশিয়ারি বার্তা হিসেবেই দেখছে আন্তর্জাতিক মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার বিজ্ঞানীরা। তাদের দাবি, এরকম অবস্থায় পরলে পরমাণু বোমা দিয়েও একে থামানো যাবে না। ওই সিমুলেশনটি তারা প্রকাশ করেছে। সিমুলেশনে থাকা গ্রহাণুটি পৃথিবী থেকে ৩৫ মিলিয়ন মাইল দূরে রয়েছে এবং এর হাত থেকে বাঁচতে ৬ মাস সময় পাওয়া যাবে বলে জানানো হয়েছে। তবে এরকম সক্ষমতা পৃথিবীর নেই।

ত ২৬ এপ্রিল থেকে ২৯ এপ্রিল পর্যন্ত লাগাতার এই গ্রহাণুকনাকে নিয়ে গবেষণা চলে। রাডার সিস্টেম, ডাটা ইমাজিং এবং বিশ্বের সবথেকে বড় টেলিস্কোপসহ বিভিন্ন প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয় এতে।

বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, এটিকে ধ্বংস করতে একটি মহাকাশযান তৈরি করার জন্য ৬ মাস খুবই কম সময়। অপরদিকে, পরমাণু বোমা দিয়েও এটিকে ধ্বংস করা সম্ভব হবে না বলেও জানিয়েছেন তারা।

আগামী ৬ মাস জুড়ে কীভাবে গ্রহাণুটি ধেয়ে আসবে তার একটি সম্ভাব্য ম্যাপ তৈরি করেছেন বিজ্ঞানীরা। এই সিমুলেশন যদি সত্যি হতো তাহলে পৃথিবীকে রক্ষা করা আসলেই অসম্ভব হয়ে পড়তো।