Home / খবর / প্রধানমন্ত্রীর আবার সাড়া সংলাপের আহ্বানে ঐক্যফ্রন্টকে

প্রধানমন্ত্রীর আবার সাড়া সংলাপের আহ্বানে ঐক্যফ্রন্টকে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভোটের ফল বাতিল করে নতুন করে নির্বাচন দেওয়ার দাবিতে বিএনপির জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট যে আহ্বান জানাচ্ছে, তাতে আবার ইতিবাচক সাড়া দিলেন । ক্ষমতাসীন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন নির্বাচনের আগে যেসব দল এবং জোটের সঙ্গে সংলাপ হয়েছিল, তাদের সঙ্গে আবার বসবেন আওয়ামী লীগ প্রধান।

রবিবার বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে চার জেলার নেতাদের সঙ্গে এক বৈঠকের আগে এ কথা বলেন ক্ষমতাসীন দলের নেতা। বলেন, ‘তাদেরকে আবার চিঠি দিয়ে সংলাপে ডাকবেন তিনি (প্রধানমন্ত্রী)।’
একাদশ সংসদ নির্বাচনের আগে ঐক্যফ্রন্ট নেতা ড. কামাল হোসেনের চিঠি পেয়ে তাদের সঙ্গে সংলাপে বসেন প্রধানমন্ত্রী। পরে আরও বেশ কিছু দল ও জোটের সঙ্গেও এক টেবিলে বসেন তিনি। আর এই সংলাপ শেষে ঘোষণা হয় নির্বাচনের তফসিল এবং তাতে অংশ নেওয়ার ঘোষণা দেয় বিএনপির জোট।
৩০ ডিসেম্বরের ভোটকে কারচুপি আখ্যা দিয়ে নতুন নির্বাচনের দাবি জানিয়ে আসা ঐক্যফ্রন্ট আবারো জাতীয় সংলাপের আহ্বান জানাচ্ছে। ওবায়দুল কাদের এই দাবিতে হাস্যকর বলে উড়িয়ে দিয়েছেন।

তবে আওয়ামী লীগ নেতা আজ বলেন, ‘সংলাপে আসলে আমরা বিভিন্ন বিষয় আলোচনা করতে পারি। বিএনপির প্রতি আমাদের অনুরোধটা রিনিউ করতে পারি। বলতে পারি, সংসদে আসুন। সম্পর্কটা রিনিউ করতে পারি।’

কারা আসবে এই সংলাপে- জানতে চাইলে জবাব আসে, ‘সকল রাজনৈতিক দল গণভবনে আমন্ত্রিত। ঐক্যফ্রন্ট আছে, যুক্তফ্রন্ট আছে, ১৪ দল আছে, জাতীয় পার্টি আছে, অন্যান্য যেসব দল আছে সবাইকে আমন্ত্রণ জানানো হবে। যাদের সঙ্গে সংলাপ করেছিলেন তাদেরকে চিঠি দিয়ে আমন্ত্রণ জানানো হবে।’

তবে কবে নাগাদ এই সংলাপ হতে পারে সে বিষয়টি অবশ্য জানাননি ক্ষমতাসীন দলের সাধারণ সম্পাদক। বলেন, ‘যারা সংলাপ এসেছিলেন তাদেরকে আবারও নেত্রী সংলাপে আমন্ত্রণ জানাচ্ছেন। একসঙ্গে সবাইকে দাওয়াত দেওয়া হবে। সেটা খুব শিগগির জানিয়ে দেওয়া হবে।’

‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা দেশের সকল রাজনৈতিক দলকে সংলাপের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। ঐক্যফ্রন্ট-যুক্তফ্রন্ট সহ ৭৫টি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে গণভবনে সংলাপ হয়েছিল। এখন নির্বাচন শেষ হয়েছে, আমাদের নেত্রী গতকাল আমাদের সঙ্গে ওয়ার্কিং কমিটিরও উপদেষ্টা পরিষদের যৌথ বৈঠকে বলেছেন যে যাদের সঙ্গে সংলাপ হয়েছে তাদেরকে আমন্ত্রণ করবেন, আহ্বান করবেন, নিমন্ত্রণ করবেন। তাদের সঙ্গে কিছু মতবিনিময় করবেন এবং তাদের আপ্যায়নের ব্যবস্থা থাকবে।’

জামায়াত নিয়ে ঐক্যফ্রন্টের প্রধান নেতা ড. কামাল হোসেনের শনিবারের বক্তব্যের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করলে এই বিষয়টি নিয়েও কথা বলেন কাদের। আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে ড. কামাল বলেন, জামায়াত নেতাদের ঐক্যফ্রন্টে মনোনয়ন দেওয়া ভুল ছিল। আর বিএনপিকে কার্যত তিনি জামায়াত ছাড়ার শর্তও দিয়েছেন।
সড়ক পরিবহন মন্ত্রী বলেন, ‘জামায়াত মানে বিএনপি, বিএনপি মানে জামায়াত। কামাল হোসেন সাহেব জেনেশুনে কেন ভুল করলেন, সেই ভুলের খেসারত তাকেই দিতে হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar