প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা ঢাকার চারপাশে বৃত্তাকার রেলপথ নির্মাণের

7

PM-700x336

ঢাকা : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন বাংলাদেশকে প্রাচ্য ও প্রাশ্চাত্যের সেতু বন্ধন হিসাবে গড়ে তোলা হবে।সে ব্যাপারে সরকার কাজ করে যাচ্ছে।বাংলাদেশের আকাশ, নৌ ও সড়ক পথে ব্যাপক উন্নয়নের কাজ হাতে নেয়া হয়েছে।বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো মেট্টোরেলের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন শেষে দেয়া বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ভৌগলিক অবস্থানের দিক থেকে বাংলাদেশ গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানে রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের মানুষের স্বপ্ন পূরণ হতে চলেছে। ঢাকার চারপাশে বৃত্তাকার রেল-নৌ-সড়ক পথ নির্মাণের ঘোষণাও দেন প্রধানমন্ত্রী।তিনি  বলেন, ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক চার লেনে উন্নীত করা হবে।

তিনি আরও বলেন, ঢাকায় অনেক মানুষের বসবাস। ‍আমাদের লক্ষ্য যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত করে তাদের যাতায়াত আরও সহজ করা।

দেশের প্রথম মেট্রোরেল নির্মিত হচ্ছে ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (এমআরটি) লাইন-৬ প্রকল্পের আওতায়। আর বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি) প্রকল্পের আওতায় নির্মিত হচ্ছে গাজীপুর বাস ডিপো।

বাস্তবায়নাধীন উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত এ মেট্রোরেলের দৈর্ঘ্য হবে ২০ দশমিক ১ কিলোমিটার। এটি উত্তরা থেকে শুরু হয়ে পল্লবী-রোকেয়া সরণির পশ্চিম পাশ দিয়ে খামারবাড়ী-ফার্মগেট-হোটেল  সোনারগাঁও-শাহবাগ- টিএসসি-দোয়েল চত্বর-তোপখানা রোড হয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক পর্যন্ত যাবে। মেট্রোরেল চালু হলে ঘণ্টায় উভয়দিক থেকে ৬০ হাজার যাত্রী পরিবহন করা যাবে।