প্রধানমন্ত্রী প্রবাসীদের দেশের মাছ খাওয়ার সুযোগ দিতে চান

19

‘খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার পর আমরা এখন পুষ্টি নিরাপত্তার দিকে বিশেষ দৃষ্টি দিচ্ছি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন। পুষ্টিটা আসবে মাছ, ডিম, দুধ ও মাংসের মধ্য দিয়ে। আমরা শুধু নিজেদের চাহিদা মেটাব না, এগুলো প্রক্রিয়াজাত করে বিদেশেও পাঠাবো। আমাদের প্রবাসীরা যে যেখানেই থাকুক, নিজের দেশের মাছ একটু খেতে চায়। আমরা তাদের সুযোগ করে দিতে পারি।’

আজ রোববার সকালে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উদযাপন ও জাতীয় মৎস্য পদক- ২০২২ প্রদান অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। এ সময় মৎস্য খাতে আওয়ামী লীগ সরকারের নেওয়া নানা উদ্যোগ ও সফলতার চিত্র তুলে ধরেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি সরকার গঠন করে গবেষণার ওপর সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিই। আমরা ৯৬’ সালে বাগেরহাটে চিংড়ি গবেষণা ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করি। পরবর্তীতে চাঁদপুরে ইলিশ গবেষণা ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠিত হয়। আমরা সচরাচর যেসব মাছ নিজেরা গ্রহণ করি এবং যা আমাদের নদী-নালা-খাল-বিলে প্রাকৃতিকভাবে হতো, সেই হারিয়ে যাওয়া মাছগুলো খুঁজে বের করা ও এর ওপর গবেষণা করার সাফল্য আজ বাংলাদেশ পাচ্ছে। যে কারণে মিষ্টি পানির মাছ উৎপাদনে আমরা স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করতে পেরেছি। বিলুপ্ত প্রজাতির অনেক মাছ এখন গবেষণার মাধ্যমে ফিরে আসছে। যেটা আমাদের পুষ্টির চাহিদা পূরণ করছে, আবার ব্যাপক হারে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করছে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা এখন চাহিদার চেয়ে অনেক বেশি মাছ উৎপাদন করতে পারি। একজন মানুষ ৬২ গ্রাম মাছ গ্রহণ করলেই সে আমিষ পেল। সেখানে আমরা তার থেকে বেশি মাছ খাওয়ার সুযোগ পাই। এটা অত্যন্ত সৌভাগ্যের বিষয়। তা ছাড়া মাছের যখন মৌসুম আসে, যেমন ইলিশ মাছের ডিম পাড়ার সময়, জাটকা যাতে না ধরে; আমরা মৎস্য চাষিদের নানা ধরনের প্রণোদনা দিয়ে থাকি এবং বিকল্প কর্মসংস্থানের ব্যবস্থাও করেছি। খাঁচার মধ্যে মাছ চাষের ব্যবস্থাও আমরা করে দিয়েছি।’

দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা নিয়ে যারা নানা সমালোচনা করছে তাদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘যারা নাই নাই, গেল গেল, হায় হায় করে বেড়াচ্ছে, এই হায় হায় পার্টি হায় হায় করতেই থাকুক। মাঝে মাঝে তাদের একটু বলতে দিতে হবে। আমরা আমাদের কাজ করে যাই। দেশ এগিয়ে যাবে। জনগণের ওপর আমাদের ভরসা আছে।’

মৎস্য চাষ ও মৎস্য উৎপাদনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখায় এ বছর ২১ জন ব্যক্তি প্রতিষ্ঠানকে জাতীয় মৎস্য পদক ২০২২ দেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী পক্ষে মৎস্য পদক তুলে দেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক। এ সময় মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম উপস্থিত ছিলেন।