ব্রেকিং নিউজ
Home / অর্থ-বাণিজ্য / প্রাইম ব্যাংক তথ্যপ্রযুক্তিতে বিনা জামানতে ঋণ দেবে

প্রাইম ব্যাংক তথ্যপ্রযুক্তিতে বিনা জামানতে ঋণ দেবে

প্রাইম ব্যাংক বর্তমান সংকটকালীন সময়ে তথ্যপ্রযুক্তি (আইসিটি) খাতে ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত জামানতবিহীন ঋণ দেবে । বাংলাদেশের বর্তমান অর্থবাজারে আইসিটি এসএমই খাত বিবেচনায় এই খাতে ঋণ দেওয়া হবে। এমনকি এই ঋণে থাকবে দুই মাসের গ্রেস সময়ও।

আজ মঙ্গলবার প্রাইম ব্যাংককে আইসিটি খাতের ‘দুঃসময়ে বন্ধু’ উল্লেখ করে এই সেবার উদ্বোধন করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। এ সময় আইসিটি খাতের উদ্যোক্তাদের অর্থায়নসহ যাবতীয় ব্যাংকিং সেবা দেওয়ার লক্ষ্যে প্রাইম ব্যাংক লিমিটেড এবং বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ‌্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এর মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়।

ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলেনের মাধ্যমে প্রাইম ব্যাংক এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রাহেল আহমেদ এবং বেসিসের সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির আনুষ্ঠানিকভাবে এই অ্যালায়েন্সের উদ্বোধন করেন।

এই চুক্তির ফলে আইসিটি প্রতিষ্ঠানগুলো ওয়ার্কিং ক্যাপিটাল (সিসি, ওডি ও ডিমান্ড লোন), ফিক্সড অ্যাসেট ক্রয় ও ক্যাপিটাল এক্সপেন্ডিচারের জন্য টার্ম লোন, ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড সল্যুশন (এলসি, এলএটিআর, আইডিবিপি), ব্যাংক গ্যারান্টি, ওয়ার্ক অর্ডার ইত্যাদি অর্থায়ন সুবিধা পাবে। ডিপোজিট সুবিধা ও ই-ট্রানজেকশনের জন্য ইন্টারনেট ব্যাংকিং – অ্যালটিচুড- সার্ভিস পাবে। লোনের জন্য দুই বছরের ব্যবসার অভিজ্ঞতা ও বেসিসের সুপারিশপত্রের প্রয়োজন হবে। বেসিসের সদস্যরা যাতে ঘরে বা বাসায় বসেই অনায়াসে লোনের আবেদনসহ যাবতীয় ব্যাংকিং সেবা গ্রহণ করতে পারেন সেজন্য প্রাইম ব্যাংক রিলেশনশিপ ম্যানেজার নিয়োগ করেছে। প্রচলিত ক্রেডিট নীতিমালা ও মর্টগেজ সংক্রান্ত কারণে আইসিটি কোম্পানিগুলোর ব্যাংক লোন পেতে চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হয়। এই অ্যালায়েন্সের ফলে দেশের অসংখ্য আইসিটি কোম্পানি সহজে অর্থায়ন সুবিধা পাবেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পলক বলেন, প্রতিনিয়ত নতুন নতুন কৌশল ও প্রযুক্তি ব্যবহার করে ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে। আমরা করোনাভাইরাসের কারণে বাধ্য হয়ে ডিজিটাল প্লাটফর্ম ব্যবহার করছি। এভাবেই আমাদের দৈনন্দিন সব কার্যক্রমে তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার বাড়াতে হবে।

মেধা সম্পদকে গুরুত্ব দিয়ে অন্য ব্যাংকগুলোকে প্রাইম ব্যাংকের অনুসরণ করার আহ্বান জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বেসিস ও আইসিটি ডিভিশন যৌথভাবে আইডিয়া, মডেল, অর্থ, টেকনোলজি এবং কোলাবরেশন এই ৫টি বিষয় নিয়ে কাজ করছি। এমন সময়ের কোভিড-১৯ এর ধাক্কা মোকাবিলায় প্রাইম ব্যাংকের এই উদ্যোগ আইসিটিখাতের জন্য দুঃসময়ের বন্ধুত্বের পরিচয় দিয়েছে।

এই অ্যালায়েন্স সম্পর্কে প্রাইম ব্যাংক এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রাহেল আহমেদ বলেন, সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ ভিশন বাস্তবায়ন এবং বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করার অগ্রযাত্রাকে এগিয়ে নেওয়ার লক্ষ্যে প্রাইম ব্যাংক একাত্ম হয়ে কাজ করছে। দেশের অর্থনীতি বদলে দেওয়ার অন্যতম হাতিয়ার হিসাবে কাজ করতে পারে দেশের সম্ভাবনাময় তথ্যপ্রযুক্তি খাত।

বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির বলেন, গত ২ দশকেরও বেশি সময় ধরে বেসিস দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উন্নয়নে এবং সদস্যদের কল‌্যাণে বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করে আসছে। আমরা জানি যে, বর্তমানে করোনাজনিত সংকট সময়ে তথ্য ও প্রযুক্তি খাতের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো মারাত্মক আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন। এমন বিরূপ পরিস্থিতিতে বেসিস সদস্যদের জন্য প্রাইম ব্যাংক লিমিটেড এগিয়ে এসেছে। এজন্য প্রাইম ব্যাংককে ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: