Home / ঢাকা / ফের দখল উচ্ছেদ করা জায়গা সপ্তাহান্তে

ফের দখল উচ্ছেদ করা জায়গা সপ্তাহান্তে

অবৈধভাবে ট্রাকস্ট্যান্ড গড়ে তুলেছিল দখলদাররা ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ২৬ শতাংশ জায়গা দখল করে । পাশাপাশি সরকারি জায়গায় অবৈধভাবে বাঁশের আড়ৎ তৈরি করার দায়ে একজনকে জরিমানা করেছিল নগর কর্তৃপক্ষ। অভিযানের সপ্তাহান্তে আবারও দখল হয়েছে জায়গাটি। জরিমানা গোনা বাঁশের আড়ৎ আগের তুলনায় বেশি জায়গা নিয়ে ব্যবসা জুড়েছে।

গত ২৯ অক্টোবর গাবতলী-সদরঘাট বেড়িবাঁধ সড়কের কালুনগর খালের স্লুইস গেট এলাকায় অবৈধ গাড়ি পার্কিং এবং স্থাপনার বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে নগর কর্তৃপক্ষ।

অভিযানে জায়গাটি দখলমুক্ত করা হয়। পাশাপাশি উচ্ছেদ করা হয় বেশ কিছু স্থাপনা। কিন্তু সপ্তাহান্তেই আবারও দখলদারদের কবজায় সিটি করপোরেশনের জায়গা। জরিমানা গোনা বাঁশ ব্যবসায়ী জায়গাটি দখল করেছেন আরও বড় আকারে।

করপোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এ এইচ ইরফান উদ্দিন আহমেদ সেদিন ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে জায়গাটি দখলমুক্ত করেছিলেন।

রবিবার সন্ধ্যায় তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। জানানো হয় পুনঃদখলের বিষয়টি। এ বিষয়ে করপোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইরফান উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘দখলমুক্ত করা জায়গাটি যদি পুনঃদখল হয়ে থাকে তাহলে আমরা এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।‘

পুনঃদখলের বিষয়ে জানতে চাইলে দক্ষিণ ঢাকার ৫৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর নূরে আলম দখলদারদের ‘বেহায়া’ আখ্যা দেন।

তিনি বলেন, ‘ওরা এক সপ্তাহ সময় নিয়েছিল। চলে যাওয়ার কথা ছিল, যায় নাই তাহলে। আমি তো আর ওইদিকে যাই নাই। আমি এটা খোঁজ-খবর নিয়ে দেখব। এরা আসলে বেহায়া।‘

তিনি আরও বলেন, ‘আমি গেলে পড়ে ট্রাক সরায় দেয়। আবার রাত্রে রাত্রে আইসা বসে। এ অবস্থায় আছি!’

করপোরেশনের ২৬ শতাংশ জায়গাকে গাড়ি পার্কিং এর জন্য টেন্ডারের মাধ্যমে ভাড়া দেওয়ার প্রক্রিয়া চলমান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি সিটি করপোরেশন থেকে একটা টেন্ডারের ব্যবস্থা করাচ্ছি। টেন্ডারের ব্যবস্থা করালে আর ওরা ঢুকতে পারবে না। এমনিতে পুলিশ পাঠালে বা আমার লোকজন পাঠালে সরে যায়। পরে আবার রাত্রে এসে থাকে। মেয়র সাহেবের সঙ্গে কথা বলে টেন্ডারের ব্যবস্থা করতেছি।‘

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: