Home / আর্ন্তজাতিক / বাংলাদেশে হস্তান্তরের খবর বঙ্গবন্ধুর খুনি মোসলেহ উদ্দিনকে

বাংলাদেশে হস্তান্তরের খবর বঙ্গবন্ধুর খুনি মোসলেহ উদ্দিনকে

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে খবর এসেছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পলাতক খুনি রিসালদার (বরখাস্ত) মোসলেহ উদ্দিনকে বাংলাদেশের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে বলে । সীমান্তের কোনো একটি স্থলবন্দর দিয়ে গত সোমবার তাকে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তর করা হয় বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।

১৯৭৫ সালের ১৫ অগাস্ট পরিবারের অধিকাংশ সদস্যসহ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত যে ছয় আসামি দীর্ঘদিন ধরে পলাতক ছিলেন, তাদের একজন মোসলেহ উদ্দিন।

ওই ছয়জনের মধ্যে পলাতক থাকা আরেক আসামি অবসরপ্রাপ্ত ক্যাপ্টেন আবদুল মাজেদ ৭ এপ্রিল ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার হওয়ার পর ১১ এপ্রিল মধ্যরাতে কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে তার ফাঁসি কার্যকর করা হয়।

মাজেদ পরিচয় গোপন করে মাস্টারমশাই পরিচয়ে কলকাতায় ২০ বছরের বেশি সময় ধরে বসবাস করে আসছিলেন। মাজেদের মতো খুনি মোসলেহ উদ্দিনও ভারতে পালিয়ে ছিলেন এবং উত্তর চব্বিশ পরগনা থেকে তাকে আটক করা হয়ে থাকতে পারে বলে দৈনিক আনন্দবাজার জানিয়েছে।

সূত্রের বরাত দিয়ে এনডিটিভি বলেছে, ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা গত সোমবার সন্ধ্যায় একটি স্থলসীমান্ত দিয়ে মোসলেহউদ্দিনকে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তর করেছে। তাকে গ্রেপ্তার করতে ভারতে শীর্ষ গোয়েন্দা সংস্থাগুলো অতি গোপনীয় অভিযান চালিয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের পুলিশও এ ব্যাপারে অবগত ছিল না। এছাড়া খুনিকে শনাক্ত করতে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করেছে বাংলাদেশ।

এর আগে গত সোমবার আনন্দবাজার এক প্রতিবেদনে জানায়, বঙ্গবন্ধুর খুনি মোসলেহ উদ্দিন পশ্চিমবঙ্গে আত্মগোপনে ছিল। ভারতের গোয়েন্দাদের সহযোগিতায় মোসলেহ উদ্দিনকে উত্তর চব্বিশ পরগনা থেকে ইতিমধ্যে আটক করা হয়েছে।

তবে অন্য একটি সূত্রের বরাতে বলা হয়, মাজেদ আটক হওয়া মাত্রই নিজের মৃত্যু সংবাদ ছড়িয়ে উত্তর চব্বিশ পরগনা থেকে গা ঢাকা দেন মোসলেহ উদ্দিন।

গোয়েন্দা সূত্রের বরাতে আনন্দবাজার আরও জানায়, দুই দেশেই করোনার লকডাউনের কারণে মোসলেহ উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যাওয়ায় সমস্যা হতে পারে বলে ঢাকা ভারতের গোয়েন্দাদের জানায়। আর একারণে ভারতীয় গোয়েন্দারা এই খুনিকে কার্যত তাড়িয়ে সীমান্তের কোনো একটি অরক্ষিত এলাকা দিয়ে বাংলাদেশের গোয়েন্দাদের হাতে তুলে দিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: